মেইন ম্যেনু

যেভাবে দুবাই নাইট ক্লাবে সর্বস্বান্ত হচ্ছে প্রবাসী শ্রমিকরা

দুবাইকে বলা হয় স্বর্নের শহর-নাইট ক্লাবের শহর। জনসংখ্যার একটি বিরাট অংশ অন্য দেশের। প্রবাসীদের বেশীর ভাগ ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, আফ্রিকান দেশের। দুবাই আরব আমিরাতে বানিজ্যিক রাজধানী। প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক দুবাই শহরের সৌন্দর্য দেখার জন্য ছুটে আসছে। পর্যটক ও প্রবাসীদের বিনোদনের জন্য দুবাই শহরের বড় বড় শপিংমলগুলোতে সিনেমা-থিয়েটার, আবাসিক হোটেল গুলোতে মদের বার, নাইট ক্লাব, ডান্স ক্লাব খোলা হয়েছে।

কাজের সন্ধানে ছুটে আসা মানুষগুলো প্রবাসে এসেই একাকীত্ব ভোগ করে। পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এক সময় হতাশায় ভোগে। হতাশা আর টেনশনে আক্রান্ত কিছু কিছু প্রবাসী এই বিনোদন জগতে (নাইট ক্লাব) প্রবেশ করে সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়ছে। এই বিনোদন জগতের বাসিন্দারা সবাই নিজ নিজ দেশের হওয়াতে তাদের সাথে খুব অল্প সময়েই সখ্যতা গড়ে উঠে। মোবাইল নাম্বার বিনিময়ের পর শুরু হয় কথা বলা। তারপর আস্তে আস্তে ভালবাসা শূরু হয় এবং এই ভালবাসার টানেই তারা প্রতিরাতে নাইটক্লাবে গিয়ে বসে থাকে। ভালবাসার মানুষকে একটু কাছে পাওয়ার জন্য কষ্টার্জিত অর্থগুলো খরচ করে ফেলে। একসময় প্রতারিত হয়ে নিঃস্ব হয়ে বাড়ী ফিরে যেতে বাধ্য হয়।






মন্তব্য চালু নেই