মেইন ম্যেনু

যশোরের শার্শায় নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধিতে চরম বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষ

গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে শার্শার ছোট বড় বাজার গুলোতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের দাম বেড়েছে অধিক হারে। চা, সিগারেট, পান, বিড়ি থেকে শুরু করে সবজি ও মাছের বাজারে দ্রব্য মূল্যেও ব্যাপক ব্যবধান সৃষ্টি হয়েছে। তবে মূল্যের পার্থক্যটা বেশি প্রভার ফেলেছে চা, পান, বিড়ি সিগারেটের উপর। এদিকে গরমের প্রভবটা এবার একটু বেশি পড়ায় বাজাওে দাম বেড়েছে ইলেকট্রিক পণ্যের ম্যল্য সহ যাবতীয় স্যালাইনের দাম। শার্শার নাভারণ বাজারের আঃ সালাম নামে এক চা দোকানি চায়ের পাশাপাশি এই গরমে স্যালাইনও বিক্রি শুরু করেছে। চা ও স্যালাইন সম্পর্কে তিনি জানায়, গত এক সপ্তাহে যে স্যালাইন ৬৫ টাকায় কিনেছি সে স্যালাইন মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে ৯০ থেকে ৯৫ টাকায় কিনতে হচ্ছে। একইভাবে বেড়েছে চা, বিড়ি ও সিগারেটের দাম। প্রচন্ড তাপদাহে ইলেকট্রিক পণ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সময় সুযোগটাকে কাজে লাগাচ্ছে ইলেকট্রিক কোম্পানি ও মফস্বল এলাকার পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। তবে বাজারের পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীরা জানায়, পণ্যের দর উঠানামার কাজটা উপর থেকে সেট হয়ে আসে এখানে আমাদের কিছু করার থাকে না। কিন্তু সচেতন মহল বলছে উপর থেকে বলতে কোথা থেকে আমাদের বুজি আসে না। এই উপজেলার ছোট খাট খুদে ব্যবসায়ীরা জানায়, দ্রব্য মূল্যের উঠানামার প্রভাবটা বেশি পড়ে আমাদের মতো খুদে ব্যবসায়েিদর উপর। তবে এভাবে দিনে দিনে দ্রব্য মূল্যের দাম বৃদ্ধি পেতে থাকলে চরম বিপাকে পড়বে নিম্ন আয়ের নানা শ্রেণীর মানুষ ও খুদে ব্যবসায়ীরা।






মন্তব্য চালু নেই