মেইন ম্যেনু

যশোরের ‘নিখোঁজ’ তিন বন্ধু কুয়াকাটায়

যশোরের চৌগাছা শাহাদাৎ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া নিখোঁজ সেই তিন ছাত্রের সন্ধান মিলেছে।

ওই তিন বন্ধু হল, চৌগাছা উপজেলার কাদবিলা গ্রামের বাসিন্দা ও চৌগাছা থানা পাড়ার ভাড়াটিয়া শফিকুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম শাওন (১৩), চৌগাছা পশ্চিম কারিগরপাড়ার আরিফুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (১৩) ও চৌগাছা বাকপাড়া এলাকার আব্দুল মালেকের ছেলে তানভির আহমেদ তন্ময় (১৩)।

তারা বাড়ির কাউকে না বলে কুয়াটাকায় চলে গিয়েছিল। বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর সোমবার রাতে তাদের সন্ধান পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার তারা বাড়ি ফিরবেন বলে জানিয়েছেন আশরাফুল ইসলাম শাওনের পিতা শফিকুল ইসলাম।

গত ২২ জানুয়ারি দুপুর আড়াইটার চৌগাছা উপজেলা সদর থেকে সহপাঠী তিন বন্ধুর নিখোঁজ হয়। পরিবারের লোকজন সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজ না পেয়ে রোববার রাতে চৌগাছায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি, নং-৯৫১) করেছিল।

চৌগাছা থানার উপপরিদর্শক আনোয়ারুল আজিম বলেন, নিখোঁজ তিন শিক্ষার্থীর সন্ধান পাওয়া গেছে। তারা বাড়ি থেকে টাকা ও শীতের জামা কাপড় নিয়ে কুয়াকাটায় চলে গিয়েছে। ওই তিন কিশোরের পরিবার জানতে পেরেছে তারা কুয়াকাটায় রয়েছে। (মঙ্গলবার) তারা বাড়ি ফিরবে বলে মোবাইল ফোনে পরিবারের লোকজনকে জানিয়েছে।

আশরাফুল ইসলাম শাওনের পিতা শফিকুল ইসলাম, ওরা তিন বন্ধু কুয়াকাটায় সমুদ্র সৈকতে রয়েছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর সোমবার রাতে ওদের সন্ধান পেয়েছি। আমার ছেলের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথাও হয়েছে। ওদের আনতে সেখানে লোক পাঠিয়েছি। মঙ্গলবার ওরা বাড়ি ফিরবে বলে আশাবাদী।

রোববার রাতে চৌগাছা থানায় নিখোঁজ আশরাফুল ইসলাম শাওনের পিতা শফিকুল ইসলাম সাধারণ ডায়েরিতে উল্লেখ করেন, ২২ জানুয়ারি দুপুর আনুমানিক ২টা ৩০ মিনিটের দিকে তার ছেলে চৌগাছা শাহাদাৎ পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আশরাফুল ইসলাম শাওন প্রাইভেট পড়ার নাম করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এরপর আর বাড়িতে ফিরে আসেনি।

বাড়িতে না ফেরায় সকল আত্মীয় বাড়ি খোঁজখবর নিয়ে জেনেছি কোথাও তার সন্ধান নেই। বাসায় খোঁজাখুজি করে জানতে পেরেছি শাওন বাড়ি থেকে যাওয়ার সময় জামা প্যান্ট, শীতের কাপড় ও ৩/৪টা বই ও আনুমানিক ৯ হাজার টাকা নিয়ে গিয়েছে।

আমার ছেলের সকল বন্ধুদের বাড়িতে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি তার অপর দুই বন্ধু আশরাফুল ইসলাম ও তন্ময়কে পাওয়া যাচ্ছে না। তিন পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের খোজাখুঁজি করছেন বলেও উল্লেখ করেন শফিকুল ইসলাম।






মন্তব্য চালু নেই