মেইন ম্যেনু

যশোরের খবর (২৪/৮/১৪)

## যশোরে এক যুবক খুন:
যশোর অফিস: যশোর শহরের পুরাতন কসবা কাঠালতলা রায়পাড়াস্থ এলাকায় মিন্টু হাওলাদার (২৮) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। সে ওই এলাকার মৃত হাশেম হাওলাদারে পুত্র। শনিবার বিকেলেওই এলাকার ইউনুস আলীর নির্মানাধীন বাড়ির ছাদের উপর থেকে মিন্টু হাওলাদারের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশকে। নিহতের পরিবার জানায় শনিবার বিকেলে মিন্টু হাওলাদারকে অজ্ঞাত দূর্বৃত্তরা ইউনুচ আলীর নির্মানাধীন বাড়ির একতলা ছাদের উপর নিয়ে ইট দিয়ে আঘাত করে হত্যা করেছে। পুলিশ জানায়,নিহতর মাথায় অস্ত্রের আঘাতের চি‎হ্ন রয়েছে। অপর দিকে মিন্টুর ভাই আলী হোসেন জানিয়েছেন, শুক্রবার গভীর রাতে একই এলাকার বরকত আলীর ছেলে বাবু ও আব্দুল বারেকের ছেলে মাসুম তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তারা তার ভাইকে হত্যা করেছে। এলাকাবাসী জানান, মিন্টু শহরের চিহ্নিত ছিনতাইকারী। ছিনতাইয়ের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে প্রতিপক্ষরা তাকে হত্যা করতে পারে। পুলিশ ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

## যশোরে ফেনসিডিলসহ তিন ব্যবসায়ী আটক:
যশোর অফিস: যশোর সদর ও চাঁচড়া ফাঁড়ির পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে ৯২ বোতল ফেনসিডিলসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। আটককৃতরা হচ্ছে,যশোর শহরের রেলগেট পশ্চিমপাড়াস্থ সুইট কমিশনারের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত কাশেমের পুত্র আতিয়ার রহমান ও রেলগেট পশ্চিমপাড়ার মৃত নিজাম উদ্দিনের পুত্র শাহীন মিয়া ও একই এলাকার মৃত আব্দুল হাবি শেখ’র পুত্র আব্দুল মালেক শেখ।
শনিবার দুপুরে যশোর সদর ফাঁড়ির টিএসআই রফিকুল ইসলাম শহরের রেলগেট এলাকা থেকে শাহীন মিয়া ও আব্দুল মালেক শেখকে ৪২ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে। অপর দিকে চাচড়া ফাড়ির এস আই জামাল উদ্ধীন শহরের চাঁচড়া চেকপোষ্ট ইজিবাইক স্ট্যান্ড থেকে ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ আতিয়ার রহমান ওরফে আতিকে আটক করে।

## যশোরে ছিনতাইকারীসহ দুইজন আটক:
যশোর অফিস: যশোরে এক ছিনতাইকারী ও রিকশা চোরকে আটক করেছে। আটককৃতরা হচ্ছে,যশোর শহরের বেজপাড়া মেইন রোডস্থ মৃত আশারুল ইসলামের পুত্র শরিফুল ইসলাম ও খোলাডাঙ্গা গ্রামের মফিজ মোল্যার পুত্র ইয়াকুব মোল্যা।
শুক্রবার রাতে যশোর সদর ফাঁড়ির পুলিশ ছিনতাইকারী সন্দেহে শরিফুল ইসলামকে আটক করে। অপরদিকে চাঁচড়া ফাঁড়ি পুলিশ রিকশা চোর ইয়াকুব আলীকে আটক করে।

## প্রেসক্লাব যশোরের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত:
যশোর অফিস: শনিবার সকালে প্রেসক্লাব যশোরের সাধারণ সভা নিজস্ব কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি মিজানুর রহমান তোতার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতি মিজানুর রহমান তোতা সুচনা বক্তব্য রাখেন। পরে সাধারণ সম্পাদক আহসান কবীর,কোষাধ্যক্ষ জুয়েল মৃধা ও দপ্তর সম্পাদক আশরাফুল আজাদ তাদের রিপোর্ট পাঠ করে শোনান।সম্পাদক,কোষাধ্যক্ষ ও দপ্তর সম্পাদক রিপোর্ট পেশ করার পর সাধারণ সদস্যরা আলোচনা ও সমালোচনা শুরু করেন। পেশকৃত রিপোর্ট ও সংগঠনের গঠনতন্ত্র নিয়ে আলোচনা করেন,ফকরে আলম,মোবিনুল ইসলাম মোবিন,মতিনুজ্জমান মিঠু,এসএম তৌহিদুর রহমান,আনোয়ারুল কবীর নান্টু,আমিনুর রহমান মামুন,মনিরুল ইসলাম,বেনজীন খান,প্রদীপ ঘোষ,তৌহিদ জামান,অসীম বোস,একরাম উদ দ্দৌলা,এম আইউব।সাধারণ সভায় সম্পাদক,কোষাধ্যক্ষ ও দপ্তর সম্পাদকের রিপোর্টের উপর আলোচনা করতে গিয়ে বক্তার পরিমান বৃদ্ধি পাওয়ায় ও সময় স্বল্পতার কারনে সাধারণ সদস্যদের জোরালো দাবির মুখে সভাপতি সাধারণ সভা মূলতবি ঘোষনা করে।আগামীতে পরবর্তী মুলতবি সভার কথা জানানোর ঘোষনা দেন সভাপতি।

## যশোরে এক হাজতী মৃত্যু:
যশোর অফিস: যশোরে আরমান (৩০) নামের এক হাজতীর মৃত্যু হয়েছে। তরে এ মৃত্যু নিয়ে নানা গুঞ্জন উঠেছে। সে যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়ার শুকুর আলীর পুত্র। তার হাজতী নং৬০৫০/১৪।
১৮ আগষ্ট আরমান র‌্যাবের হাতে আটক হয়। এ মামলায় তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ। শনিবার সকালে আরমান অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে কারা হাসপাতালে এবং পরে তাকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যাপারে কারাগারের জেলার মহি উদ্দিন হায়দারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন আরমান দুই দিন আগে কারাগারে আসে। সে হেরোইন আসক্ত ছিল। এ কারনে তার মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যাপারে যশোর কোতয়ালি থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

## যশোর পৌর এলাকায় সরবরাহর পানির জন্য হাহাকার চলছে:
যশোর অফিস: যশোর শহরে চলছে ভয়াবহ পানির সংকট। বিশেষ করে পৌরসভার অভিজাত এলকা হিসেবে পরিচিত সার্কিট হাউজ পাড়ায় পানির জন্য হাহাকার পড়ে গেছে। পৌরসভার স্পালাই পানি পাচ্ছে না এ পাড়ার বাসিন্দারা। শুধু এ পাড়ায়ই নয়, পৌর এলাকার বেশ কিছু এলাকায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে। নিয়মিত পানির বিল দিলেও গত তিন মাস ধরে তারা ঠিকমত পানি পাচ্ছেন না। কবে এ সমস্যার সমাধান হবে তাও পৌর কর্তৃপক্ষ বলছে না। ফলে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে পৌরসভার বাসিন্দারা।
পৌরসভার বাসিন্দারা জানান, গেল শুস্ক মৌসুম পৌরসভার আট হাজার নলকূপে কোন পানিই উঠেনি। ব্যক্তিমালিকানাধীন ৯৯ শতাংশ নলকূপেরও ঠিকমত পানি তুলতে পারেনি। অনেকে বাজার থেকে মিনারেল ওয়াটার কিনে খেতে বাধ্য হন। সেসময় প্রতিনিয়ত টিউবওয়েল থেকে পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পানীয় জলের জন্য গৃহবধূরা কলস নিয়ে ছুটছেন আশপাশের পাড়ায়। পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায়ই পানির এ সংকট সৃষ্টি হয়েছিল বলে সে সময় সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানায়। কিন্তু বর্তমান বর্ষা মৌসুমেও পৌর কর্তৃপক্ষ ঠিকমত পানি সরবরাহ দিতে পারছে না। পানি না পেয়ে শুস্ক মৌসুমের চেয়েও ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এখন মানুষ পানির অভাবে ওযু পর্যন্ত করতে পারছে না। যে কারণে অনেকে জুম্মার নামাজ পড়তে পারছে না। আবার অনেকে পানির আভাবে ২/৩দিন গোসল না করে কাটিয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। কেউ কেউ অন্য পাড়ায় গিয়ে গোসল সারতে বাধ্য হচ্ছেন। এ ব্যাপারে বারবার পৌরসভায় অভিযোগ করেও তারা কোন সুফল পাচ্ছেন না। পৌরসভার অভিজাত এলাকা সার্কিট হাউজ পাড়ার বাসিন্দা আব্দুল্লাহ জানান, গেল শুস্ক মৌসুমে তারা ঠিক মত পানি পাননি। অনেক সময় অন্য বাড়ি থেকে পানি সংগ্রহ করেছে বাড়ির গৃহবধূরা। এখন বর্ষা মৌসুম চলছে, এখনও তারা ঠিকমত পৌরসভা তাদের পানি দিচ্ছে না। একই পাড়ার গাজী কাদের ছাত্রাবাসের বাসিন্দা যশোর এম এম কলেজের শিক্ষার্থী আসাদুজ্জামান নয়ন জানান, পানির অভাবে তারা ঠিকমত গোসল করতে পারছেন না। অনেকে ছাত্রাবাস ছেড়ে এম এম কলেজের পুকুরে গিয়ে গোসল করতে বাধ্য হচ্ছেন। গোসল করতে না পেরে নামাজও পড়তে পারছেন না।সার্কিট হাউজ পাড়ার বাসিন্দা একরামুল হক জানান, তিনি নিয়মিত পৌরসভায় পানির বিল পরিশোধ করছেন। কিন্তু পানি পাচ্ছেন না। অন্য পাড়ায় গিয়ে পানি সংগ্রহ করতে বাধ্য হচ্ছেন। তিনি আরও জানান, গেল শুস্ক মৌসুমে কলে পানি উঠেনি। বর্তমানে ঠিকমত পানি উঠছে না। আশপাশের কলেও পানি নেই। অনেক দূর থেকে পানি টানতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বাড়ির বউরা। খড়কি এলাকার মিসেস আনন্দ জানান, পৌরসভার সরবরাহ করা পানির দেখা মিলছে না কয়েক মাস ধরে। ফলে শিশুদের নিরাপদ পানির পাশাপাশি গোসলও করাতে পারছেন না। অনেক দূর থেকে পানি সংগ্রহ করে শিশুদের গোসলের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এভাবে কত দিন চলবে তাও পৌরসভা থেকে কিছু বলছে না। বার বার পৌরসভায় গিয়ে সমস্যা কথা বললেও তারা এ বিষয়ে কোন কর্ণপাত করছে না।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানায়, পৌর এলাকার ব্যক্তিমালিকানাধীন বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে ২০ সহ¯্রাধিক নলকূপ রয়েছে। পৌরসভা সূত্র জানায়, পৌরসভার খাতা-কলমে আট হাজার নলকূপ রয়েছে। এছাড়া ২০টি পাম্প হাউস রয়েছে। পাম্প হাউসগুলো চাহিদামতো পানি সরবরাহ করতে পারছে না।এ ব্যাপারে যশোর পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান জানান, বিদ্যুতের অভাবে তারা ঠিকমত পানি সরবরাহ করতে পারছে না। বিদ্যুতের সমস্যা সমাধান হলেই তারা আবার ঠিকমত পানি সরবরাহ করতে পারবে। অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা একটা ব্যবস্থা নিচ্ছি। ২/৩ দিনের মধ্যেই এ সমস্যার সমাধান হবে।যশোর পৌরসভার মেয়র মারুফুল ইসলাম বলেন, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পানি সরবরাহ করা হয় যশোর পৌরসভায়। তারপরও যে সব এলাকায় পানির সমস্যা রয়েছে সেখানে ইঞ্জিনিয়র দিয়ে সার্ভে করানো হচ্ছে। খুব দ্রুতই পানির সমস্যা সমাধান করা হবে বলে তিনি জানান।

## যবিপ্রবি ও আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিস’র মধ্যে কোলাবরেশন স্বাক্ষর:
যশোর অফিস: যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিস’র মধ্যে কোলাবরেশন স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে যবিপ্রবি গ্যালারিতে এ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিস’র প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. গোলাম এম. মাতবর। যবিপ্রবি উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার ছিলেন, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো. ইসমাইল হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন, যবিপ্রবি ট্রেজারার প্রফেসর জামাল হোসেন, ডিন আনিসুর রহমান ও ড. শেখ মিজানুর রহমান, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী আহসান হাবিব।

## যশোরে চরমপন্থি পরিচয়ে চাঁদা দাবি ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে ব্যাপক আতংক:
যশোর অফিস : এবার যশোরে সোনালী ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় জনযুদ্ধের পরিচয় দিয়ে ৩৫ লাখ টাকা করে চাঁদাদাবি করেছে। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় অকথ্য ভাষায় গালিগালি করে জীবন নাশের হুমকি দিয়েছে। ফলে যশোরে ব্যাংকার মধ্যে জীবনের চরমনিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। একই দিনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিবের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) ও পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির পরিচয়ে অগ্রণী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংকে এই চাঁদা দাবি করা হয়।
সোনালী ব্যাংকের যশোর বাজার শাখার ম্যানেজার নাসের মুস্তাফিজ জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে জনযুদ্ধের নেতা পরিচয় দিয়ে হাতকাটা বিপ্লব নামে এক ব্যক্তি বাংলা লিংক (০১৯৪২-৫১৭০৯৫) থেকে ল্যান্ডফোন ফোন করেন। এসময় তিনি তাদের নেতাকর্মীরা জেল-হাজতে ও ভারতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অনেক টাকা প্রয়োজন। এসময় তিনি ৩৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে জীবনে শেষ করার হুমকি দিয়ে বলেন পরিবারের সকলকে জীবনে শেষ করে লাশ গুম করা হবে জানান। একই ভাবে সোনালী ব্যাংকের রেলগেট শাখার ম্যানেজার বিশ্বজিৎ কুমার বিশ্বাস, বসুন্দিয়ার শাখার ম্যানেজার মনোয়ার হোসেন, বাঘারপাড়ার ম্যানেজার পুষ্পজিৎ বিশ্বাস, নারিকেলবাড়িয়ার ম্যানেজার মশিয়ার রহমান, কেশবপুর শাখার ম্যানেজার শংকরদত্ত, শার্শা শাখার ম্যানেজার মশিয়ার রহমান, ধলগ্রাম শাখার ম্যানজোর হান্নান, বেনাপোল শাখার বিদ্যেন্দু দাশ, আলফা মিলগেট শাখার ম্যানেজার গোলাম মোর্তজা, খাজুরা বাজার শাখার ম্যানেজার জহির রায়হানের কাছে ৩৪ লাখ টাকা করে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। এভাবে সোনালী ব্যাংকের বিভিন্ন শাখার চাঁদা দাবি করায় সোনালী ব্যাংকের পক্ষে থানায় সাধারণ ডাইরি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংকের এজিএম আব্দুল মান্নানের সাথে কথা বললে তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা সবাই আতংকের মধ্যে জীবনযাপন করছি।একই ভাবে বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহবুবুর রহমান পরিচয়ে ০১৯৪২-৫১৭০৯৫ নম্বর মোবাইল দিয়ে যশোর শহরে পালবাড়ি মোড় রূপালী ব্যাংক এসএমআর রোড শাখার ল্যান্ডফোনে ফোন দেয়। ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি দেওয়া হয় বলে জানান শাখার প্রিন্সিপ্যাল অফিসার শহিদুল ইসলাম। একই দিনই দুপুর দেড়টার দিকে জেলার বাঘারপাড়ার রায়পুর বাজার শাখায় ০১৯৬৯-৮৭২৬১৯ নম্বর মোবাইল দিয়ে পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির জনযুদ্ধের আঞ্চলিক কমান্ডার মহিউদ্দীন পরিচয়ে তাদের নেতাকর্মীরা জেল-হাজতে ও ভারতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ অবস্থায় তাদের পার্টির জন্য চাঁদা দিতে হবে দাবি করে হুমকি দেওয়া হয় বলে জানান শাখার ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম। এ বিষয়ে যশোর ওয়ার্ক স্টেশনের উপ-মহাব্যবস্থাপক শওকত আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, তিনি জেলার ৮টি শাখা থেকে এ খবর শুনেছেন এবং ঝিনাইদহ থেকেও এ ধরনের চাঁদা দাবির খবর পেয়েছেন। এদিকে, কেশবপুরের ৩ ব্যাংক ম্যানেজারের কাছে মোবাইল ফোনে নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থি সংগঠন জনযুদ্ধের নামে ১ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করা হয়েছে। চাঁদা না দিলে সন্তানসহ পরিবার পরিজনকে ধরে নিয়ে বোমা মেরে হত্যার হুমকি দিয়েছে। ফলে আতঙ্ক বিরাজ করছে ওই ৩ ব্যাংক ম্যানেজারের পরিবারে। ওই ঘটনায় অগ্রণী ব্যাংকের পক্ষ থেকে থানায় জিডি করা হয়েছে। এর আগের দিন বুধবার দুপুরে একই ভাবে অগ্রণী ব্যাংক কেশবপুর শাখার ম্যানেজার শফিউদ্দিনের কাছে ৩৫ লাখ এবং প্রতাপপুর শাখার ম্যানেজার গোপাল চন্দ্র চৌধুরীর কাছে ৩০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। অগ্রণী ব্যাংক কেশবপুর শাখার ম্যানেজার শফিউদ্দিন জানান, জনযুদ্ধের নেতা পরিচয়ে মোবাইল ফোনে তাকে বলেন, তাদের ৩ দিনের মধ্যে ৩৫ লাখ টাকা প্রয়োজন। টাকা না দিলে তার স্কুল পড়–য়া ছেলেকে ধরে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয়া হয়। একইভাবে প্রতাপপুর শাখার ম্যানেজার গোপাল চন্দ্র চৌধুরীর বাড়িতে বোমা হামলা করে পরিবার পরিজনকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ঘটানায় অগ্রণী ব্যাংকের পক্ষ থেকে বুধবার রাতে থানায় ৬১৩ নং জিডি করা হয়েছে। কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল জলিল বলেন, অগ্রণী ব্যাংকের জিডি অনুযায়ী মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে ওই চক্রটিকে সনাক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।এ ব্যাপারে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর পিএস নোমান সাদেক জানিয়েছেন, আমার জানামতে মাহবুবুর রহমান নামে কোন ব্যক্তি সচিবের পিএস নাই। কোন কুচক্রি মহল মন্ত্রণালয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে তাদের উদ্দেশ্য সফল করতে চেয়েছে। যশোরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন জানান, শুধু রূপালী, সোনালী ও অগ্রণী ব্যাংকের এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। মোবাইল নম্বরগুলো আমরা সংগ্রহ করেছি, তদন্ত করা হচ্ছে।

## যশোরে ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা:
যশোর অফিস : যশোরে ছিনতাইকারীরা অস্ত্রের মুখে বিকাশের কর্মচারীর মফিজুর রহমানের কাছ থেকে নগদ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে। সে যশোর শহরের চিত্রার মোড়ে বিকাশ এজেন্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী শাহাবুদ্দিন মন্ডলের পুত্র।
বৃহস্পতিবার বিকেলে মফিজুর রহমান বিভিন্ন স্থানে বিকাশের টাকা সংগ্রহন করে ফিরছিলেন। উপশহর নিউ মার্কেট হোটেলের পিছনে শৌচাগারের সামনে অবস্থান কালে অজ্ঞাত জন ছিনতাইকারী পিস্তল ঠেকিয়ে কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

## যশোরে মাদক দ্রব্যসহ দুই বিক্রেতা আটক:
যশোর অফিস : যশোর কোতয়ালি থানা ও সদর ফাঁড়ির পুলিশ পৃথক অভিযান চালায়। এ সময় দুই মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে। তাদের কাছ থেকে ফেনসিডিল ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে। আটককৃতরা হচ্ছে,নারায়ণ গঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার ভাটারা গামে আব্দুর রশিদের পুত্র সুজন ভুইয়া ও যশোর শহরের খড়কী দক্ষিণ পাড়ার আলতাফ হোসেনের পুত্র ওহিদ।
বৃহস্পতিবার রাতে যশোর কোতয়ালি থানার এসআই শেহাবুর রহমান শহরে রায়পাড়াস্থ কয়লাপট্টিতে অভিযান চালায়। এ সময় ওহিদকে আটক করেছে। তার কাছ থেকে ২০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে। অপরদিকে সদর ফাঁড়ির পুলিশ শহরের দড়াটানা ব্রিজের উপর থেকে সুজন ভুইয়াকে আটক করে। তার দেহ তল্লাশী করে ৩০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। এ ব্যাপারে যশোর কোতয়ালি থানায় পৃথক মামলা হয়েছে।

## যশোরে দুই চিহ্নিত ছিনতাইকারী আটক:
যশোর অফিস : বৃহস্পতিবার রাতে যশোর সদর ফাঁড়ির পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময় শহরের চিহ্নিত দুই ছিনতাইকারীকে আটক করেছে। আটককৃতরা হচ্ছে,যশোর শহরের সিটি কলেজপাড়ার মৃত সিরাজের পুত্র আলামিন,ওই এলাকার রফিকের পুত্র বাদশা। পুলিশ জানায় তারা শহরের চিহ্নিত ছিনতাইকারী । তাদের বিরুদ্ধে একাধিক ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে।

## যশোর এক শিশু হত্যার অভিযোগ:
যশোর অফিস : শুক্রবার দুপুরে যশোর শহরের ঘোপ কবর স্থান পাড়ার শিশু শৈশব (৬) নামে এক বালককে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। জানাগেছে,যশোর শহরের ঘোপ কবরস্থান পাড়ার দিনার আহমেদের পুত্র শৈশব পুকুরে ডুবে মারা যায়। নিহত শৈশবের অভিভাবকরা অভিযোগ করেন,উপশহর এলাকার দিলদারের পুত্র সুমন ও শরিফুলের পুত্র ইয়াছিন শৈশবকে গলা টিপে হত্যা করে পুকুরের মধ্যে ফেলে দেয়। লাশের ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

## যশোরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মান্নান হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ মিছিল ও থানা ঘেরাও:
যশোর অফিস :যশোর শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হয়। এ হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে শুক্রবার বিকেলে যশোর শহরের বেজপাড়ার এলাকাবাসীর উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ ,মিছিল ও থানা ঘেরাও কর্মসুচী পালন করেছে। এ সময় এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন আব্দুর সবুর রান ও গোলাম মোস্তফা । এ সময় এলাকাবাসী অবিলম্বে মান্নানের হত্যাকারীদের আটকসহ দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন। সমাবেশ শেষে যশোর কোতয়ালি থানা চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিল শহরের গুরুত্ব পুর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে।






মন্তব্য চালু নেই