মেইন ম্যেনু

মোদির পর ক্যালেন্ডারে ছবি বিতর্কে মমতা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পর এবার ক্যালেন্ডার বিতর্কে নাম জড়ালো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। রাজ্য মসজিদ ও মাদ্রাসার জন্য ছাপানো পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের ধর্মীয় ক্যালেন্ডার ঘিরে তৈরি হয়েছে এই বিতর্ক। ইমামদের দাবি, ইসলামিক মতে বাকশক্তি আছে এমন কোন প্রাণীর ছবি মসজিদ বা মাদ্রাসায় টাঙানো নিষিদ্ধ। এক্ষেত্রে ক্যালেন্ডারে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি রয়েছে। ফলে, দফতরে পড়ে নষ্ট হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ছাপানো ক্যালেন্ডারগুলি। খবর কলকাতা টোয়েন্টিফোরের।

ইমামদের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, ইসলামিক শরীয়ত মতে বাকশক্তি আছে, এমন কোন প্রাণীর ছবি মসজিদ বা মাদ্রাসায় টাঙানো যায় না। এতে নামাজের একাগ্রতা নষ্ট হয়। বহু যুগ ধরে বিভিন্ন মসজিদ ও মাদ্রাসাগুলো এই নিয়ম মেনে আসছে। তবে, কোন গাছ, ফুল, ফল ও নদীর ছবি টাঙানো যেতে পারে।

কিন্তু, ইসলামিক শরীয়ত মেনে কেন ক্যালেন্ডার ছাপালো না পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম? এ ব্যাপারে সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের কর্মকর্তাদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী সংখ্যালঘুদের জন্য যথেষ্ট করছেন। তাই দফতর মনে করেছে, ক্যালেন্ডারে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি থাকুক। আর তাতেই পড়ে নষ্ট হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ছাপানো ক্যালেন্ডারগুলি।

এর আগে, ভারতের একটি সরকারি দফতরের ক্যালেন্ডারে মহাত্মা গান্ধীর ছবি সরিয়ে সেখানে নরেন্দ্র মোদির ছবি বসানো নিয়ে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়।






মন্তব্য চালু নেই