মেইন ম্যেনু

মাশরাফিকে বীরোচিত সংবর্ধনায় বর

কারো হাতে ফুলের তোড়া, চোখে-মুখে আনন্দের বার্তা, কেউবা রয়েল বেঙ্গল টাইগার সাজে, সর্বত্রই সাজসাজ রব, ব্যানার-ফেস্টুন-প্লাকার্ডে ঝলমলে নগরীতে পরিণত হয়েছে পুরো নড়াইল। এর সবটাই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে ঘিরে। মঙ্গলবার নড়াইলবাসী তাদের গৌরবের ভূমিপুত্র মাশরাফিকে বীরোচিত সংবর্ধনা দিতেই এমন জমকালো আয়োজন করেছে। হাজার হাজার মাশরাফি ভক্তদের স্বতঃস্ফূত অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে সংবর্ধনা গণসংবর্ধনায় রূপান্তরিত হয়েছে।

মাশরাফি বিন মর্তুজা বিকাল ৪টার সময় হেলিকপ্টারযোগে নড়াইল সরকারী ভিক্টোরিয়া কলেজ মাঠে অবতরণ করেছেন। তার সফর সঙ্গী হিসেবে আরও ছিলেন স্ত্রী সুমনা হক সুমি, মেয়ে হোমায়রা, ছেলে ছায়েল এবং নড়াইল জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু।

হেলিকপ্টার থেকে অবতরণের পর পরই নড়াইল জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। মাশরাফি ভক্তদের উচ্ছ্বাস রুখতে পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবকরা হিমশিম খেয়েছে। মাশরাফি একটি খোলা জিপ গাড়িতে উঠার পর শুরু হয়েছে বর্ণিল শোভাযাত্রা। হাতি, ১০টি ঘোড়ার গাড়ি, মোটরসাইকেল বহর আর কয়েক হাজার ভক্তের উচ্ছ্বাস-উল্লাসে নড়াইল শহর প্রকম্পিত হয়ে উঠেছে। প্রায় ৩ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেছে এই শোভাযাত্রা। মাঠে অবস্থানরত হাজারো ভক্ত মাশরাফির নাম ধরে শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত করে তুলেছেন।

মাশরাফিকে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন এ্যাডভোকট শেখ হাফিজুর রহমান এমপি, নড়াইল জেলা প্রশাসক আব্দুল গাফফার খান, জেলা পরিষদ প্রশাসক এ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু, মাশরাফির গর্বিত পিতা গোলাম মোর্তজা স্বপন, মাতা হামিদা বেগম বলাকা, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক রাবেয়া ইউসুফ, নড়াইল চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি হাসানুজ্জামান, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এনামুল কবির টুকুসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংসঠনসহ ২২টি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মাশরাফিকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।

সংবর্ধিত মাশরাফি বলেছেন, ‘নড়াইলবাসী আমাকে যে সম্মান দেখিয়েছেন তা আমার কাছে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ক্রিকেটের জন্য আমি আজীবন কাজ করে যাব। আমি যাতে সুস্থ হয়ে আগামীতে আরও ভালভাবে খেলতে পারি, দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনতে পারি, সে জন্য নড়াইলসহ দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করছি।’ সংবর্ধনা উপলক্ষে রাতে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

মাশরাফির আগমন উপলক্ষে কুড়িরডোব মাঠে মাশরাফির পরিবারের পক্ষ থেকে তার মা হামিদা বেগম বলাকা, বাবা গোলাম মর্তুজা স্বপন, শাশুড়িসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত হয়েছেন। মাশরাফির নানার নামে প্রতিষ্ঠিত ‘আতাউর রহমান ক্রিকেট ক্লাব’ এর সদস্যরা রয়েল বেঙ্গল টাইগারসহ নানা ভঙ্গিতে সেজে মাঠ শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত করে রেখেছেন।






মন্তব্য চালু নেই