মেইন ম্যেনু

মালয়েশিয়ায় দেখা দিলেন পলাতক বিএনপি নেতা কাইয়ুম

শেষ পর্যন্ত মালয়েশিয়াতেই দেখা দিলেন বিএনপি নেতা এম এ কাইয়ুম। প্রায় দুই বছর আত্মগোপনে থাকা এই বিএনপি নেতা দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরে এক রাজনৈতিক সভায় যোগ দিয়েছেন রবিবার। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সভাপতি করায় কাইয়ুমকে সংবর্ধনা দিতে এ আয়োজন করে মালয়েশিয়া বিএনপি।

২০১৫ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গুলশানে ইতালীয় নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যা মামলায় নাম আসার আগে থেকেই আত্মগোপনে ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির নতুন সভাপতি এম এ কাইয়ুম। তিনি মালয়েশিয়ায় পালিয়ে গেছেন-এমন গুঞ্জন ছিল তখন থেকেই। কিন্তু নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছিল না।

এই মামলায় গ্রেপ্তার আসামিরা আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন। বলেছেন, এক বড় ভাইয়ের নির্দেশে দেশে অস্থিতিশীল অবস্থা তৈরির জন্য খুন করা হয় তাভেল্লাকে। আর এই বড় ভাই যে এম এ কাইয়ুম, সেটি প্রকাশ করে পুলিশ। আর কাইয়ুমসহ আসামিদের বিচারও শুরু হয়েছে আদালতে।

বড় ভাই পুলিশের নজরদারিতে আছেন এবং তাকে যে কোনো সময় গ্রেপ্তার করা হবে-এমন বক্তব্য দেয়া হলেও তিনি আসলে পালিয়ে যান দেশের বাইরে।

পলাতক থাকা অবস্থাতেই গত মঙ্গলবার রাতে কাইয়ুমকে ঢাকা উত্তরের সভাপতি করে কমিটির ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। তখনও তার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে পলাতক নেতার পক্ষে দল চালানো কতটা সম্ভব হবে-এ নিয়ে আলোচনা তৈরি হয় দলের ভেতরেই।

তবে আত্মগোপন থেকে বের হয়ে এসে কাইয়ুম বলেছেন, তিনি দেশের বাইরে থাকলেও সংগঠন পরিচালনায় তা কোনো সমস্যা হবে না। তিনি বলেছেন, ‘তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে দূরে বসে দায়িত্ব পালন কোনো ঘটনাই না। আমার সঙ্গে প্রতিনিয়ত নেতাকর্মীদের যোগাযোগ হচ্ছে।’

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নেতাকর্মীদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বানও জানান কাইয়ুম। বলেন, সরকার পতনের আন্দোলন সফল করতে একটি পরিকল্পিত পরিকল্পনা তৈরি করা হবে। তবে এর সবটুকু প্রকাশ করা যাবে না। কারণ, প্রকাশ হয়ে গেলে তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

ব্যক্তিগত এবং রাজনৈতিক সমস্যার জন্যই তাকে মালয়েশিয়া অবস্থান করতে হচ্ছে বলেও জানান কাইয়ুম। বলেন, ‘আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করা খুবই চালেঞ্জিংয়ের। তাই এখনি নয়,দায়িত্ব পালন শেষেই ফুলের শুভেচ্ছা কিংবা অভিনন্দন নিতে পারবো।’

‘অবৈধ সরকার’ এর হাত থেকে মুক্তি পেতে দেশের ১৬ কোটি মানুষ বিএনপির দিকে তাকিয়ে আছে দাবি করে কাইয়ুম বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তর এবং দক্ষিণের সমন্বিত আন্দোলনে সরকারকে বিদায় করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা হবে।

অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য মোশাররফ হোসেন মালয়েশিয়া থেকে আন্দোলনের জন্য সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

হাবিবুর রহমান শিশিরের সঞ্চালনায় ও মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিএনপি মালয়েশিয়া শাখার সভাপতি হাজী জাকিরুল ইসলাম, যুবদল বাড্ডা থানার সভাপতি জাহাঙ্গীর মোল্লা, স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক কাজী রহমান মানিক, মহানগর বিএনপির সহ সাধারণ সম্পাদক হেলাল তালুকদার, আলাউদ্দীন সরকার টিপু, দক্ষিণ খান থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান নাজিম উদ্দিন, বিএনপির মালয়েশিয়া শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএম জাহাঙ্গীর আলম, ফজলুল করীম সোহরাব, প্রচার সম্পাদক বশীর আলম, দপ্তর সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রতন, সহ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এমএ কালাম প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই