মেইন ম্যেনু

মরণেও একসঙ্গে প্রেমিক যুগোল

বেশ কিছুদিন ধরে প্রেম চলছিল স্কুলছাত্রী সঙ্গে সেলুন কর্মচারীর। বাকি জীবন হয়তো একসঙ্গেই কাটাতে চেয়েছিল তারা। কিন্তু পারেনি। তাই মৃত্যুকেই বেছে নেয় তারা। রাতের আঁধারে একসঙ্গে একই গাছে রশি বেঁধে আত্মহত্যা করে প্রেমিক যুগল।

এমনই ঘটনা ঘটেছে নরসিংদীর রায়পুরায়। যেখানে একসঙ্গে একই গাছে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে তরুণ-তরুণী।

শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার সাউদপাড়া এলাকার একটি গাছ থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- সাউদপাড়া গ্রামের বিশাল চন্দ্র বর্মনের ছেলে সেলুন কর্মচারী সুখলাল বর্মণ ও একই গ্রামের রাখাল চন্দ্র বর্মনের মেয়ে ও স্থানীয় মণিপুরা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী মনিকা রানী বর্মণ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সুখলাল বর্মণের সাথে প্রতিবেশী মনিকা রানী বর্মণের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার রাত আটটায় তারা দুজন নিখোঁজ হয়। পরে নিকট আত্মীয় স্বজনসহ বন্ধু-বান্ধবের বাড়িতে খোঁজ করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

পরে স্থানীয় লোকজন শুক্রবার সকালে বাড়ির পাশের একটি গাছে তাদের মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখে পরিবারের লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে সকাল সাড়ে দশটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের লাশ উদ্ধার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।






মন্তব্য চালু নেই