মেইন ম্যেনু

ব্রেস্ট ক্যান্সার নিরাময় করতে পারে কাঁচা মরিচ

বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সারের নিরাময় পদ্ধতি বিভিন্ন ধরণের। স্তন্য ক্যান্সার হচ্ছে সবচেয়ে আক্রমণাত্মক ক্যান্সার যা নিরাময় করাটা কঠিন। ইস্ট্রোজেন, প্রোজেস্টেরন এবং এপিডারমাল গ্রোথ ফ্যাক্টর রিসেপ্টর ২ (HER2) এই ৩ টি উপাদানের উপস্থিতি ও অনুপস্থিতির উপর ভিত্তি করে ব্রেস্ট ক্যান্সারকে শ্রেণী বিভক্ত করা হয়। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে, গবেষকেরা স্তন্য ক্যান্সার নিরাময়ের প্রাকৃতিক উপাদান খুঁজে পেয়েছেন। আর সেই ঘরোয়া উপাদানটি হচ্ছে কাঁচামরিচ।

এছাড়াও কাঁচামরিচে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী এবং এতে রোগ প্রতিরোধকারী উপাদান ও বিদ্যমান। কাঁচামরিচ ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং আয়রন এ সমৃদ্ধ। ফ্রি র‍্যাডিকেলের প্রভাব থেকে মুক্ত থাকতে সাহায্য করে কাঁচামরিচ। কাঁচামরিচের ক্যান্সার নিরাময়ে সাহায্য করে যেভাবে :

টিআরপি চ্যানেল

ক্যাপসাইসিন নামক সক্রিয় উপাদান থাকে কাঁচামরিচে যা ক্যান্সার কোষের উপর প্রভাব সৃষ্টি করে। গবেষণামতে বিভিন্ন সম্ভাব্য অস্থায়ী রিসেপ্টর (TRP) চ্যানেলের প্রভাব ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধির উপর পড়ে। টিআরপি চ্যানেলগুলোকে ঝিল্লিময় আয়ন চ্যানেলের উদ্দীপনার দ্বারা প্রভাবিত করা যেতে পারে।

ক্যাপসাইসিন এর প্রভাব

ক্যাপসাইসিন কোষের মৃত্যুর উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে এবং ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধিকে প্রতিহত করতে পারে। এটা শুধু ব্রেস্ট ক্যান্সারই নয় কোলন ক্যান্সার ও অগ্ন্যাশয় ক্যান্সার নিরাময়েও সাহায্য করতে পারে।

অলফ্যাক্টরি রিসেপ্টর

এটি এমন এক ধরণের প্রোটিন যা ছোট অণুগুলোকে একসাথে আবদ্ধ করতে পারে। এটি ক্যাপসাইসিনের দ্বারাই সক্রিয় হয়। গবেষণায় এটা জানা গেছে যে, টিআরপি চ্যানেল সক্রিয় হওয়ার পরে ক্যান্সার কোষ এবং অনেক বেশি সংখ্যক টিউমার কোষ ও মারা যায়।

ব্রেস্ট ক্যান্সার

চূড়ান্তভাবে গবেষণা শেষে এটাই বলা হয় যে, খাবারের মাধ্যমে বা শ্বাসের মাধ্যমে ক্যাপসাইসিন গ্রহণ করাই ক্যান্সার কোষ নিরাময়ের জন্য যথেষ্ট।

সূত্র: বোল্ডস্কাই






মন্তব্য চালু নেই