মেইন ম্যেনু

বেরোবিতে চতুর্থদিনের মতো চলছে উপাচার্যকে অসহযোগিতা

এইচ.এম নুর আলম, বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) চতুর্থ দিনের মতো চলছে উপাচার্যকে অসহযোগিতা কার্যক্রম। প্রমোশন/আপগ্রেডেশন, স্থগিতদের বেতন প্রদান,আপগ্রেডেশন প্রাপ্ত পদে স্থায়ীকরণ, শুন্য পদে পদায়ন রহিতকরণের সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত বাতিল এবং বেতন স্থগিত কর্মকর্তাদের বেতন চালু ও স্বপদে পদায়নসহ অন্যান্য দাবিতে গত ২৩ জানুয়ারি উপাচার্যকে প্রশাসনিক কাজে অসহযোগিতার ঘোষণা দেন বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন।
এই ঘোষণার পরদিন একই দাবির সাথে অন্যান্য দাবি সংযুক্ত করে মোট পাঁচ দফা দাবি নিয়ে ২৪ জানুয়ারি উপাচার্যকে অসহযোগিতার ঘোষণা দিয়ে প্রশাসনিক কাজে বিরতি দেয় কর্মচারি ইউনিয়ন। এমনকি ২৮ জানুয়ারি আসন্ন সিন্ডিকেটে উভয়ের বিষয়গুলো বাস্তবায়ন না হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।
তবে উভয় সংগঠনের সভাপতি দাবি করেছেন এতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কোনো কাজে ব্যাঘাত ঘটানো হবে না। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সকল কার্যক্রমে আমরা সহযোগিতা করবো এবং তাঁদের পরিবহনও চলবে।
এদিকে গতকাল এই পরিস্থিতিতে উপাচার্য ড. একে এম নূর-উন-নবী বিশেষ বাহন “ভ্যান’’ এ অফিস করেছেন বলে জানা গেছে।
পদোন্নতি/আপগ্রেডেশন নীতিমালা পুনর্বহাল, বকেয়া বেতনসহ অন্যান্য দাবিতে কর্মচারিদের দেওয়া ৪৮ ঘন্টার সময়সীমা শেষ হবে আজ (বৃহস্পতিবার) বিকাল পাঁচটায়। এরপর যে কোনো ধরণের কর্মসূচি দেওয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নুর আলম।
আসন্ন সিন্ডিকেটে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতনের বিষয়টি সুরাহা হতে পারে বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য যে, কর্মচারিদের মধ্যে ৪৫ মাস ধরে ৬৬ জনের বকেয়া বেতন বন্ধ রয়েছে।মানবেতর জীবন যাপন করছেন অনেকেই।কর্মকর্তাদের পদোন্নতি বন্ধ রয়েছে পদোন্নতি/আপগ্রেডেশন নীতিমালা সিন্ডিকেটে কার্যকরের অভাবে।






মন্তব্য চালু নেই