মেইন ম্যেনু

বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে অযত্ন-অবহেলায় জাহানারা ইমামের সমাধি

মহান মুক্তিযুদ্ধে ছেলেকে হারানো শহীদ জননী জাহানারা ইমামের সমাধিক্ষেত্রটি অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তার কবরটি অনেকটা অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে।

শনিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শহীদ জননীর অরক্ষিত অবস্থায় থাকা কবরের ছবিটি ছড়িয়ে পড়ে।

ছবিতে দেখা যায় জাহানারা ইমামের কবরটি ঘিরে দেয়া বাঁশের বেড়া একপাশে প্রায় সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে।

মুক্তিযুদ্ধে বড় ছেলে শফি ইমাম রুমীকে হারান জাহানারা ইমাম। ১৯৯২ সালের ১৯ জানুয়ারি তার নেতৃত্বে গঠিত হয় ১০১ সদস্যবিশিষ্ট একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি।

১৯৯২ সালে ২৬ মার্চ শহীদ জননীর নেতৃত্বে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক ‘গণআদালতে’ তৎকালীন জামায়াতে ইসলামীর আমির গোলাম আযমের বিচার অনুষ্ঠিত হয়। ১২ জন বিচারক নিয়ে গঠিত ওই গণআদালতের চেয়ারম্যান ছিলেন জাহানারা ইমাম।

জাহানারা ইমামের জন্ম ১৯২৯ সালের ৩ মে ভারতের বর্তমান পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদে। তিনি কথাসাহিত্যিক, শিক্ষাবিদ হিসেবেও স্বনামখ্যাত ছিলেন। তার রচিত একাত্তরের দিনগুলি মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম প্রামাণ্য দলিল।

১৯৯৪ সালের ২৬ জুন মৃত্যু হয় শহীদ জননীর।






মন্তব্য চালু নেই