মেইন ম্যেনু

বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে সমালোচনা স্বৈরশাসকের প্রতিধ্বনি : রিজভী

রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী গতকাল চট্টগ্রামে আইইবি’র অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, যারা রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরোধিতা করছে তাদের মানুষের কোনো দুঃখ নাই। তাদের রয়েল বেঙ্গল টাইগারের সঙ্গে দেখা করে জানতে চাওয়া উচিৎ কোনো অসুবিধা হচ্ছে কি না?
এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সরকারের মন্ত্রীরা যেভাবে দেশের শীর্ষস্থানীয় নেতা, বুদ্ধিজীবী ও পরিবেশবাদীদের বিরুদ্ধে সমালোচনা ও গালিগালাজ করছেন তাতে তাদের এই বক্তব্য বিশ্বের স্বৈরশাসকদের বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি। প্রধানমন্ত্রী যখন রাশিয়াতে বাঘ সম্মেলনে গিয়েছিলেন তখন কী তিনি দুনিয়ার তাবৎ বাঘকে নির্মূল করার সিদ্ধান্ত নিতেই সেখানে গিয়েছিলেন?
দেশের ৯৯ ভাগ মানুষ রামপালে বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের ঘোরবিরোধী বলেও জানান রিজভী।
রাজধানীর নয়াপল্টননে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।
রিজভী বলেন, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মতামতকে উপেক্ষা করে ৬ সদস্য বিশিষ্ট সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে। একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সাথে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপের পরও একতরফাভাবে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে, পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনে যে এক ব্যক্তির ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটবে না সেটির সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়ার কোনো অবকাশ নেই। যেভাবে সরকারের প্রভাবিত ও আওয়ামী মনোভাবাপন্ন লোকদের দিয়ে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে তাতে তাদের মাধ্যমে একটি নিরপেক্ষ ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন হবে সেটি নিয়ে জনমনে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে।
এই অনুসন্ধান কমিটি আওয়ামী শাসকগোষ্ঠীর ছায়াসঙ্গী, বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের বর্ধিত প্রকাশ। এরা কতটুকু নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন কমিশন গঠন করতে পারবে সে বিষয়ে জনমনে তীব্র সন্দেহ সৃষ্টি হওয়ার যথেষ্ট কারণ রয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই