মেইন ম্যেনু

বিদেশি শ্রমিকদের অস্থায়ী কাজের ভিসা বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া

বিদেশি শ্রমিকদের অস্থায়ী কাজের ভিসা (৪৫৭ ভিসা নামে পরিচিত) বাতিলের ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৮ সালের মার্চের মধ্যে এর বিকল্প হিসেবে নতুন ভিসা চালু করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার।

নাগরিকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল। তিনি বলেছেন, অভিবাসীদের নিয়েই তৈরি অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে অস্ট্রেলীয় নাগরিকদের অগ্রাধিকার অস্বীকার করার উপায় নেই। ৪৫৭ ভিসা নিয়ে বিদেশিরা এখানে অস্থায়ীভাবে কাজ করতে আসেন, সেটি বাতিল করা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়ার এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধুমাত্র দক্ষ কর্মীরাই কাজের সুযোগ পাবেন। বিদেশিদের ৪৫৭ ভিসা দিয়ে দেশের মানুষের অধিকার ছিনিয়ে নেবে না সরকার। কর্মক্ষেত্রে অস্ট্রেলীয় নাগরিকদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

দক্ষ শ্রমিকের ঘাটতি মেটাতে ১৯৯৬ সালে ৪৫৭ ভিসা চালু করেছিলেন দেশটির তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জন হাওয়ার্ড। প্রাথমিকভাবে ৪৫৭ ভিসা নিয়ে দেশটিতে চাকরির অনুমতি পান বিদেশি নাগরিকরা। এছাড়া সেকেন্ডারি ৪৫৭ ভিসা ব্যবহার করে পরিবারের সদস্যদেরকেও সেখানে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি ছিল।

তবে স্বল্প ব্যয়ে কর্মী নিয়োগ করতে বিভিন্ন সংস্থা এই ভিসার অপব্যবহার করায় প্রকল্পটি বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়েছে বলে দাবি করেছেন টার্নবুল। ৪৫৭ ভিসা বাতিল করলেও তার সরকার দক্ষ বিদেশি কর্মীদের নিরাশ করতে চায় না বলে জানিয়েছেন তিনি।

টার্নবুল বলেছেন, ‘বিদেশি কর্মীদের একেবারে নিরাশ করতে চায় না অস্ট্রেলিয়া। দক্ষতা অনুযায়ী কাজের ব্যবস্থা করাই আমাদের লক্ষ্য। শিগগিরই ৪৫৭ ভিসার বিকল্প ব্যবস্থা আনা হবে।

গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রাইমারি ৪৫৭ ভিসা নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় কর্মরত ছিলেন প্রায় ৯৫ হাজার বিদেশি কর্মী। এই কর্মীদের বেশিরভাগই ভারত, ব্রিটেন এবং চীনা নাগরিক।






মন্তব্য চালু নেই