মেইন ম্যেনু

বিএনপি খালি হাতে দাঁড়িয়ে থাকবে না : রিজভী

সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘আন্দোলন হবে শান্তিপূর্ণ। সরকার যদি তাতে অস্ত্র ব্যবহার করে তাহলে বিরোধী দল খালি হাতে দাঁড়িয়ে থাকবে না।’

শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আন্দোলন নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা ও মন্ত্রীদের সমালোচনার প্রতিবাদ করে রিজভী বলেন, ‘আমরা নতুন আন্দোলন করছি না। আমরা যে প্রতিশ্রুতি দেই তা রক্ষা করি। আর আওয়ামী লীগ আন্দোলন করতে এসে পালিয়ে গিয়েছিল, এরশাদের সঙ্গে নির্বাচন করে জাতীয় বেইমান হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আপনাদের দেশ পরিচালনার দায়িত্ব কে দিয়েছে? আপনারা জোর করে দায়িত্ব নিয়েছেন। আপনারা তো দেশের নয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দায়িত্ব নিয়েছেন। বিরোধী দলের কোনো নেতাকর্মীর দায়িত্ব নেন নাই বরং আরও হত্যা করছেন। বিরোধীমতের জনগণ কি বাংলাদেশের বাহির থেকে এসেছে?’

রিজভী বলেন, ‘সরকার মিথ্যার ফানুস ছাড়া কিছুই দিতে পারেনি। ঈদকে ঘিরে মানুষকে কোনো নিরাপত্তা দিতে পারেনি। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিভিন্ন জায়গায় লাশ পড়ে থাকাই যেন উন্নয়নের চিত্র। সরকার সন্ত্রাস করে দেশ পরিচালনা করছে।’

বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা যে ভাষায় কথা বলছেন তা টিক্কাখান ও স্বৈরাচারী সরকারকেও হার মানিয়েছে। ওনারা লাগামহীনভাবে কথা বলছেন।’

সরকারের উদ্দেশে রিজভী বলেন, ‘আন্দোলনের কথা শুনে সরকারের মন্ত্রীরা আঁৎকে উঠেছে। একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হবে। আর তা হতে হবে নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে। তাহলে আন্দোলনের কথা শুনে তাদের ভারসাম্য হারাতে হবে না।’

আন্দোলন কবে নাগাদ শুরু হবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, ‘২০ দলীয় জোট ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর নতুন কর্মসূচি আসবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক কাজী আসাদুজ্জামান আসাদ, সহ- দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই