মেইন ম্যেনু

‘বাড়তি ভাড়া আদায় রুখতেই সিটিং বন্ধ’

গণপরিবহনে সিটিং সার্ভিস বন্ধে মালিকদের নেয়া সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এই সেবা বন্ধ হলে বাড়তি ভাড়া আদায় যেন বন্ধ হয় সে জন্য নজরদারি থাকবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের কৌশল বন্ধ করতেই রাজধানীতে গণপরিবহনের সিটিং চলাচল বন্ধ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ বুধবার (০৫ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিদর্শনে গিয়ে মন্ত্রী এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজধানীতে কোনো সিটিং, গেটলক সার্ভিস চলবে না।

সিটিং বন্ধ হলে ভাড়া কমে আসবে কি না জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, ভাড়া যেটা আছে, সেটাই চলবে। তবে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় যেন না হয়, সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। পরিবহন মালিক-শ্রমিকরাও সিটিং বন্ধে আপত্তি তোলেননি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মালিক-শ্রমিকরাও খুশি। তাঁরাও চান না, সিটিংয়ের নামে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় হোক।

সিটিং সার্ভিস-গেটলক সার্ভিসের নামে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের যে ফন্দি, তা বন্ধ করতেই এ ব্যবস্থা।’

এ সময় মন্ত্রিসভায় নীতিগত অনুমোদন হওয়া সড়ক পরিবহন আইন নিয়েও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আইনটি নীতিগত অনুমোদন হয়েছে। কিন্তু এর মানে এই নয় যে, এটিই পাস হবে। অনেকগুলো পর্যবেক্ষণ এসেছে, আরো ধাপ রয়েছে। এরপর আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিং হবে। ফলে এখানে পরিবর্তনও আসতে পারে।

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, আমরা মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে কোনো সিদ্ধান্তে আসি। কিন্তু যথাযথ আইনের অভাবে আমরা কঠোর সিদ্ধান্তে আসতে পারি না। আইনটি হয়ে গেলে কঠোর হওয়া যাবে। আইন আইনের গতিতে চলবে।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, বিআরটিএর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই