মেইন ম্যেনু

বালিকাকে কিনে নিয়ে ধর্ষণ

এই একবিংশ শতাব্দীতেও যৌন কামনা চরিতার্থ করতে এক বালিকাকে কিনে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। কিনেছেন ভারতের চেন্নাইয়ের এক ইঞ্জিনিয়ার। শুধু যৌন লালসা মেটাতে বাবা-মায়ের কাছ থেকে ১৬ বছরের বালিকাকে কিনে ৭ মাস ধরে ধর্ষণ করেছেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, এস কুপ্পুস্বামী নামের ওই ‘ভদ্রলোক’ পূর্ত দপ্তরের ইঞ্জিনিয়ার। বয়স ৫৪ বছর। গ্রামের বাড়িতে দালালের মাধ্যমে ১৬ বছরের ওই বালিকাকে বিয়ে করার কথা বলেন তিনি। এজন্য ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা নগদও দিতে চান। প্রথমে রাজি না হলেও, টাকার লোভে পরে রাজি হন মেয়েটির অভিভাবক। কথা মতো জানুয়ারি মাসে স্থানীয় একটি মন্দিরে বিয়ে হয় তাদের।

সপ্তাহের শেষে ফিরে স্ত্রীকে বাবা-মায়ের কাছ থেকে নিয়ে আসতেন নিজের বাড়িতে। এর পর থেকেই শুরু হয় যৌন নির্যাতন। এমনকি বিকৃত যৌনতার জন্য মেয়েটিকে ‘এক্সটাসি’ ড্রাগ নিতে বাধ্য করতেন তিনি। রাজি না হলে চলত অকথ্য অত্যাচার। এর হাত থেকে বাঁচতে আত্মহত্যার চেষ্টাও করে মেয়েটি। ১৮ জুলাই কুদ্দালোরের ডিস্ট্রিক্ট কোঅর্ডিনেটর রাজেশ কান্নান স্থানীয় কয়েকজন যুবকের কাছ থেকে অভিযোগ পান। সে দিনই তিনি গ্রামে গিয়ে অভিযোগ খতিয়ে দেখে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। মেয়েটিকে উদ্ধার করে হোমে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটির অভিভাবক-সহ এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কিন্তু মূল অভিযুক্ত কুপ্পুস্বামী লাপাত্তা।






মন্তব্য চালু নেই