মেইন ম্যেনু

বস আমাকে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করত!

পুরুষ সহকর্মীদের কাছ থেকে কাজের জায়গায় পদে পদে খারাপ ব্যবহার পেয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, সংস্থার মাথায় বসে থাকা কর্তাব্যক্তিরা মহিলা কর্মীদের নানা ভাবে হেনস্থা করার চেষ্টা করতেন। কখনও মানসিক হেনস্থা, কখনও যৌনতা। অভিযোগেই উইপ্রো ইউকে-র বিরুদ্ধে ১২ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করলেন শ্রেয়া উকিল নামে এক প্রাক্তন কর্মী।

শ্রেয়া জানাচ্ছেন, মহিলাদের সব ক্ষেত্রে ব্রাত্য করে রাখা হত। যে মহিলারা একে অপরকে সাহায্য করতেন, তাঁদের সমকামী ট্যাগ লাগিয়ে দেওয়া হত। এমনকী তাঁদের অনেককেই পুরুষ কর্মীদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করতে বাধ্য করা হত। তিনিও এমনই এক ঘটনার শিকার। শ্রেয়ার কথায়, ২০১৩-য় স্টকহোমে গিয়েছিলাম আমার প্রাক্তন বস মনোজ পুঞ্জা-র সঙ্গে। গোটা সফর চলাকালীন তিনি আমায় নানা ভাবে যৌনতাপূর্ণ ইঙ্গিত করেছেন। আমায় বাধ্য করেন তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে। পরে এ নিয়ে মুখ খুলতেই তার শাস্তি হিসাবে আমার চাকরি চলে যায়।

এমপ্লয়মেন্ট ট্রাইবুনালে শুনানির সময় শ্রেয়া আরও জানান, একই পদে এক জন পুরুষ কর্মী যা রোজগার করেন, মহিলারা পান তার অর্ধেক। অনেক মহিলা কর্মী এই অভিযোগেই এর আগেও সংস্থার চাকরি ছেড়ে অন্যত্র চলে গিয়েছেন। সংস্থার সেল্স কনফারেন্সে পুরুষরা স্ট্রিপ ক্লাবে গিয়ে যৌনতা এবং হুল্লোড়ে মাতবেন বলে মহিলকর্মীরা সেখানে আমন্ত্রণ পান না। অথচ পদ মর্যাদায় আমার সেখানে থাকার কথা ছিল বলে জানান তিনি।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই