মেইন ম্যেনু

বক্তব্যের ‘ভুল ব্যখ্যা’ হয়েছে : দাবি কোহলির

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘটনাবহুল সিরিজ শেষে ধর্মশালায় সংবাদ সম্মলনে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির এক মন্তব্যে নতুন কর তোলপাড় শুরু হয় দুই দেশের ক্রিকেটে। কোহলি বলেছিলেন, “অস্ট্রেলিয়ানদের সঙ্গে আর বন্ধুত্ব নয়!” তার এই বক্তব্য মুহূর্তেই আগুনের মতো ছড়িয়ে পড়ে ক্রিকেট বিশ্বে। কোহলির বিরুদ্ধে দানা বাঁধতে থাকে ক্ষোভ। যার ফল অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার থেকে সংবাদ মাধ্যমের আক্রমণের মুখে পড়তে হয় তাকে। এই পরিস্থিতিতে নিজের বক্তব্য নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি।

গত বুধবার অস্ট্রেলিয়া মিডিয়া কোহলির ক্লাস নিয়ে প্রশ্ন তোলে। তার এই বক্তব্যকে ‘ইগো’, এবং ‘শিশুসুলভ’ বলে মন্তব্য করে অজি মিডিয়া। স্মিথের ক্ষমা চাওয়ার সঙ্গে তুলনা করে বলা হয় কোহলিরও ক্ষমা চাওয়া উচিত। এই কথার ‘ঝড়ের’ মাঝে এতদিন চুপ করেই ছিলেন কোহালি। এ বার টুইটারে মুখ খুললেন তিনি। জানিয়ে দিলেন তার বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা হয়েছে। তিনি কোনোভাবেই পুরো অস্ট্রেলিয়া দলের কথা বলেননি। বিশেষ কয়েকজনের কথা বলেছেন।

সেই বক্তব্যে নাকি কোহলি বলেছিলেন, “সিরিজের শুরুতে আমি যেটা বলেছিলাম সেটা বদলে গেছে। প্রথম টেস্টের আগে যেটা বলেছিলাম, তাতে আমি ভুল প্রমাণিত হয়েছি। সেই কথা আমার মুখ থেকে আর কেউ শুনবে না। ”

সমস্যা বড় হয় যখন বেঙ্গালুরু টেস্টের শেষে স্মিথের ডিআরএসের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে ড্রেসিংরুমের সাহায্য চাওয়া নিয়ে মুখ খোলেন কোহলি। পুরো ঘটনায় জড়িয়ে যায় দুই বোর্ড, আইসিসি, এমন কী সংবাদ মাধ্যম। কোহলিকে বিশ্ব ক্রিকেটের ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প’ও বলে অজি সংবাদ মাধ্যম। মাঠেই রবিন্দ্র জাদেজা ও ম্যাথু ওয়েড জড়িয়ে পড়েন ঝগড়ায়। মুরলি বিজয়কে গালি দিয়ে বসেন স্মিথ। সব মিলে মাঠের বাইরের লড়াইয়ে জমজমাট টেস্টে সিরিজ শেষ হলেও বাকযুদ্ধ থামছে না এখনও।






মন্তব্য চালু নেই