মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে নিজের শিশু সন্তানকে হত্যার দৃশ্য প্রচার

থাইল্যান্ডে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের শিশু সন্তানকে হত্যার ভিডিও সম্প্রচার করেছে এক ব্যক্তি। এর পরপরই ওই ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার দেশটির পুলিশ কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছে।

সোমবার ভিডিওটি আপলোড করার পর ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত এটি ওই ব্যক্তির ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ছিল। স্থানীয় সময় বিকেল ৫টার দিকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এটি সরিয়ে নেয়।

ভয়াবহ ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, অবকাশযাপন কেন্দ্র ফুকেটের একটি ভবনের ছাদে উত্তিসান অংতালেই নামের ওই ব্যক্তি তার ১১ মাসের কন্যা শিশুর গলায় দড়ি দিয়ে ফাঁস দেয়। এরপরই সে শিশুটিকে ছাদ থেকে ফেলে দেয়।

মামলার তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা জুল্লাউস সুভান্নিন জানিয়েছেন, উত্তিসান অংতালেইর আত্মহত্যার দৃশ্য ফেসবুকে সম্প্রচারিত হয়নি। তার মৃতদেহ নিজের সন্তানের পাশেই পাওয়া গেছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যাবে এবং তাকে ভালোবাসে না এ নিয়ে শঙ্কায় ছিল উত্তিসান।

উত্তিসানের স্ত্রী জিরানুখ ত্রিরত্ন বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, তিনি এক বছরেরও বেশি সময় ধরে উত্তিসানের সঙ্গে বাস করছেন। প্রথমদিকে তাদের সম্পর্ক বেশ ভালো যাচ্ছিল। পরে ধীরে ধীরে সে সহিংস হয়ে ওঠে। আগের স্বামীর ঔরসে জন্ম নেওয়া পাঁচ বছরের ছেলেকে মাঝেমাঝেই মারধর করতো উত্তিসান।






মন্তব্য চালু নেই