মেইন ম্যেনু

প্লে অফের আশা ধরে রেখেছে মুম্বাই

সংযুক্ত আরব আমিরাতে আসরের প্রথম পাঁচ ম্যাচেই হারের শোচনীয় ধাক্কা কাটিয়ে এখন প্লে অফ পর্বে খেলার জোর লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। শুক্রবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম ম্যাচে তারা ১৫ রানে ধুঁকতে থাকা দল দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে।

জয়ের জন্য ১৭৪ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে অধিনায়ক কেভিন পিটারসেনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে অনেকটাই এগিয়ে যায় দিল্লি। কিন্তু পরবর্তীতে মনোজ তিওয়ারি ও জেপি ডুমিনির আপ্রাণ চেষ্টার পরও নির্ধারিত ওভার শেষে ৪ উইকেটে ১৫৮ রান তুলতে সক্ষম হয় তারা। ফলে ১৫ রানের হার মানতে হয় দিল্লিকে। পিটারসেন মাত্র ৩১ বলে ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৪৪ রান করেন। ইনিংসের শেষ দিকে ডুমিনি মাত্র ২৯ বলে ৪ ছক্কায় ৪৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেললেও দলকে জয় এনে দিতে পারেননি। মূলতঃ ৩১ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৪১ রানের চমৎকার ইনিংস খেলা তিওয়ারির বিদায়ের সঙ্গে সঙ্গেই জয়ের সম্ভাবনা লোপ পায় দিল্লির।

মুম্বাইয়ের পক্ষে মার্চেন্ট ডি ল্যাঙ্গে ৪ ওভারে ৩২ রানে ২ উইকেট নেন। শ্রেয়াস গোপাল ও হরভজন সিং নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মুম্বাই টপ অর্ডারে চমৎকার ব্যাটিংয়ের পরও শেষ প্রান্তে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ১৯.৩ ওভারে ১৭৩ রানে অলআউট হয়। দলের পক্ষে ওপেনার মাইক হাসি মাত্র ৩৩ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৫৬ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন। যা তাকে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কার এনে দেয়। এছাড়াও আরেক ওপেনার লেন্ডল সিমন্স ২৫ বলে ৫ চারে ৩৫ এবং অধিনায়ক রোহিত শর্মা ২১ বলে ৪ চারে ৩০ রান করেন।

দিল্লির পক্ষে লেগ স্পিনার ইমরান তাহির ৩৭ রানে ৩ উইকেট নেন। এছাড়াও জয়দেব উনাড়কড় ২৪ রানে ২ উইকেট নেন। এ জয়ে মুম্বাই এখন ১২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মুম্বাই ১৯.৩ ওভার ১৭৩ (মাইক হাসি ৫৬, সিমন্স ৩৫, রোহিত ৩০, আদিত্য তারে ১৪, পোলার্ড ১১, তাহির ৩/৩৭, উনাড়কড় ২/২৪, পারনেল ১/২৬)

দিল্লি ২০ ওভার ১৫৮/৪ (ডুমিনি অপরাজিত ৪৫, পিটারসেন ৪৪, তিওয়ারি ৪১, ডি ল্যাঙ্গে ২/৩২, গোপাল ১/২০, হরভজন ১/৩০)

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মাইক হাসি






মন্তব্য চালু নেই