মেইন ম্যেনু

প্রেমের টানে সব ছেড়ে ঝিনাইদহের মিঠুনের ঘরে মার্কিন তরুণী

ভালোবাসা। এটি শুধু একটি শব্দই নয়। একটি পরিভাষাও। যা দুটি মনের চাওয়া পাওয়া এক করে দেয়। ভালবাসা দু’টি মনে যেমনি এনে দেয় শান্তি, তেমনি এটি যখন প্রতারণায় পরিণত হয়। তখন হয়ে উঠে ভয়াবহ। অনেক সময় মৃত্যুরও কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তবে এই ভালোবাসার কারণে অনেকেই সাত সাগার তের নদীও পাড়ি দিতে পারে। তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে ঝিনাইদহে।

প্রেমের টানে সুদূর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাবা-মা আত্মীয়দের ছেড়ে ঝিনাইদহের প্রেমিকের কাছে এসেছেন এক মার্কিন তরুণী। ইতোমধ্যেই তাদের বিয়েও হয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি এখন টক অব দ্য ঝিনাইদহে পরিণত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার রাখালগাছি গ্রামের পঞ্চানন্দ বিশ্বাসের ছেলে মিঠুন বিশ্বাসের প্রেমে পড়ে মার্কিন মেয়ে এলিজাবেথ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের পরিচয়। ধীরে ধীরে এই পরিচয় প্রেমে রূপ নেয়। গত ২ জানুয়ারি এলিজাবেথ তার ভালোবাসাকে বাস্তবে পাওয়ার জন্যে বাংলাদেশে পাড়ি দেন। পরে খ্রিস্টান ধর্ম মতে তাদের বিয়ে হয়। এখন তারা সংসার করছে, সুখেই কাটছে তাদের বৈবাহিক জীবন। এলিজাবেথ জানিয়েছে তার ভালোবাসার মানুষ কে পেয়ে সে খুব খুশি।

মিঠুন বিশ্বাস তার প্রতিক্রিয়ায় জানান, মার্কিন নাগরিক এলিজাবেথ আমার ভালোবাসার দাম দিয়ে বাংলাদেশের মত একটি অনুন্নত দেশে এসেছে সে জন্য আমি গর্বিত। তা ছাড়া সে আমার সাথে মাঝে মাঝে যোগাযোগ করতে না পারলে হতাশ হয়ে পড়তো। এলিজাবেথ পরিবারের লোকজনের অমতে চাকরি করে টাকা রোজগার করে বাংলাদেশে এসেছে।

এ ব্যাপারে রাখাল গাছি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম জানান, মার্কিন মেয়ে এলিজাবেথ সাথে রাখালগাছি গ্রামের ছেলে মিঠুন বিশ্বাসের বিয়ে হয়েছে। বাস্তবে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে খুশি হয়েছি।






মন্তব্য চালু নেই