মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রী নীরব কেন প্রশ্ন রফিকুলের

গাজায় নিরস্ত্র নারী ও শিশুদের ওপর ইসরায়েলের বর্বোরচিত হামলার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সব সময় উচ্চ কণ্ঠে কথা বলেন। গাজায় নীরিহ নারী ও শিশুদের ওপর নির্বাচারে ইসরায়েলি হামলায় তিনি নীরব কেন। তিনি যদি হামলার প্রতিবাদের উদ্যোগ গ্রহণ করতেন তাহলে দেশের সবাই অংশ নিতো।’ বিশ্ব মানবতাকে গাজা হামলায় প্রতিবাদে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত ফিলিস্তিনিদের ওপর বর্বরোচিত হামলা ও গণহত্যা অবিলম্বে বন্ধের দাবিতে মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার রফিকুল বলেন, ‘বিশ্ববিবেক নীরব রয়েছে। যারা মানবতার জয়গান করে রাস্তায় নামেন তারা গাজা হামলায় নীরব কেন। সেখানে কোনো চিকিৎসা সেবা ও পানির ব্যবস্থা নেই।’

বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের কোনো মূল্য নেই। গাজায় ইসরায়েলি বাহিনী শুধু মুসলমান হত্যা করেনি তারা মানুষ হত্যা করেছে। একজন মানুষকে হত্যা করলে সমস্ত মানবকে হত্যা করা হয়। বিশ্ব মানবতা এক হলে গাজার এই হামলা বন্ধ করা সম্ভব।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের রহমাতুল্লার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, সহ-স্বেচ্ছাবিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, জিয়া নাগরিক ফোরামের সভাপতি মিয়া মোহাম্মাদ আনোয়ার প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই