মেইন ম্যেনু

প্যারোলে মুক্তি পেলেন লুৎফুজ্জামান বাবর

প্যারোলে মুক্তি পাওয়ায় রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে অনুষ্ঠেয় মায়ের জানাজায় অংশগ্রহণ করবেন কারাবন্দি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর। মাকে শেষ দেখা ও তার জানাজায় অংশ নিতে বাবরের মুক্তির জন্য মঙ্গলবার দুপুরের দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানানো হয়।

লুৎফুজ্জামান বাবরের মা জোবাইদা রহমান মঙ্গলবার ভোরে অ্যাপোলো হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। দীর্ঘদিন ধরে কিডনির জটিলতায় আক্রান্ত জোবাইদা রহমান ঈদের দুইদিন আগে অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে হাসপাতাল থেকে মরহুমার মরদেহ ছেলে বাবরের গুলশানের বাসায় নেয়া হয়। বাদ আসর গুলশানের আজাদ মসজিদে জানাজা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে স্বামীর পাশে দাফন করা হবে।

তিনি আরো জানান, মায়ের মৃত্যুর খবর সকালে কাশিমপুর কারাগারে বন্দি ছেলে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের কাছে পৌঁছানো হয়। এরপর মাকে শেষ দেখা ও তার জানাজায় অংশ নিতে বাবরের মুক্তির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানানো হয়।

এদিকে জোবাইদা রহমানের মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি মরহুমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোকার্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

পরে মির্জা ফখরুল দুপুর ১২টার দিকে বাবরের বাসায় গিয়ে মরহুমার প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এ সময় তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলেন।

জোবাইদা রহমানের স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার একে লুৎফুর রহমান ১৯৯৬ সালে মারা যান। তাদের চার ছেলে ও তিন মেয়ে। বাবর ভাইদের মধ্যে ছোট।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর আলোচিত ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। ২০০৪ সালের ২১ অগাস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলায় হত্যা মামলা এবং সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায়ও তার নাম রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই