মেইন ম্যেনু

পরীক্ষার খাতায় হিন্দি গানের কলিসহ প্রেমপত্র লিখেই পাশ করানোর দাবি!

পরীক্ষার খাতায় হিন্দি গানের কলি ও প্রেমপত্র লেখার দায়ে বহিষ্কার হয়েছেন ভারতের পশ্চিবঙ্গের একটি আইন কলেজের ১০ শিক্ষার্থী।

উত্তরপত্রে হিন্দি গানের কলিসহ প্রেমপত্র লেখায় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট আইন কলেজের ওই ১০ পরীক্ষার্থীকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করেছে গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ সময়ের মধ্যে ওই পরীক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কোনো পরীক্ষা দিতে পারবেন না।

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষার খাতায় প্রেমপত্র ও গান লেখার অভিযোগে ওই ১০ পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

কমিটি তাদের দুই বছরের জন্য বহিষ্কারের সুপারিশ করে। গতকাল মঙ্গলবার বহিষ্কারের আদেশ বালুরঘাট আইন কলেজে পাঠানো হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারির শেষে বালুরঘাট আইন কলেজের দ্বিতীয় ও চতুর্থ সেমিস্টারের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়।

দ্বিতীয় সেমিস্টারে যে ১৮২ শিক্ষার্থী পরীক্ষা দেন তাদের মধ্যে সব বিষয়ে পাশ করেন মাত্র ২৫ জন। ৪৪ জন এক বিষয়ে ও ২২ জন দুই বিষয়ে ‘ব্যাক’ পান। বাকি ৯১ জন অকৃতকার্য হন।

তবে ওই পরীক্ষার্থীদের মধ্যে দ্বিতীয় সেমিস্টারের ১০ জনের পরীক্ষার উত্তরপত্রে ছিল দারুণ চমক। এদের চার জন উত্তরপত্রের পাতায় পাতায় প্রেমপত্র লেখেন। দুই জন প্রেমপত্রের সঙ্গে জুড়ে দেন কিশোর কুমারের হিন্দি গানের কলি।

দুই জন খাতায় লেখেন পরীক্ষার দিনের ঘটনাবলী নিয়ে গল্প। বাকি দুজন আপত্তিকর ভাষা ব্যবহার করে উল্টা-পাল্টা লেখেন।

তবে বড় চমক ছিল, ওই পরীক্ষার্থীরাই তাদের পাশ করানোর দাবিতে ২৭ জানুয়ারি বালুরঘাট আইন কলেজে বিক্ষোভ করেন। তবে স্থানীয় সাংসদ ও ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের চাপে পিছু হটেন শিক্ষার্থীরা।

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সনাতন দাসকে আহ্বায়ক করে একটি ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিটি করা হয়।

কমিটি ১০ পরীক্ষার্থীকে শুনানির জন্য ডাকেন। তবে শুনানিতে হাজির হয়েছিলেন আট জন। পরে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বহিষ্কার করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই