মেইন ম্যেনু

পদ্মায় নিখোঁজ ৫ জনের মরদেহ উদ্ধার

কালবৈশাখী ঝড়ের কবলে পড়ে রাজশাহীর পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজের প্রায় ৩৬ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার ভোরে দুর্ঘটনাস্থলের প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে নগরীর জাহাজঘাট এলাকা থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা মরদেহগুলো উদ্ধার করে।

নিহতরা হলেন- নগরীর দরগাপাড়া এলাকার সারোয়ার হোসেন রফিক (৪৫), রবিন (২৮), খানপুরের আসাদুল (৪৫) এবং শাহমখদুম জামিয়া ইসলামিয়া মাদরাসার শিক্ষার্থী আবুল আহাদ (৯) ও তামিম (৯)।

স্থানীয়রা জানান, ভোর ৬টার দিকে তারা মরদেহগুলো নদীতে ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করেন।

রাজশাহী ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের উপ-পরিচালক নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, উদ্ধারের পর মরদেহগুলো পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি জানান, এর আগে গত রোববার সন্ধ্যার পর ঝড়ের কবলে পড়ে নগরীর পদ্মা গার্ডেন এলাকার পদ্মা নদীতে সাতজন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। ওই দিন রাত পৌনে ১২টার পর থেকে ভোর পৌনে ৪টা পর্যন্ত উদ্ধার অভিযান চলে। সোমবার সকাল ৮টা থেকে আবারো শুরু হয় অভিযান। দিনভর অভিযানে সন্ধান মেলেনি মরদেহের।

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ) শাহাদত হোসেন খান বলেন, উদ্ধারকৃত সারোয়ার হোসেন রফিক, রবিন ও আসাদুলের মরদেহ স্বজনদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া আবুল আহাদ ও তামিমের মরদেহ নিয়ে গেছেন শাহমখদুম জামিয়া ইসলামিয়া মাদরাসা কর্তৃপক্ষ।

ওসি আরও বলেন, গত রোববার সন্ধ্যায় সাতজন যাত্রী নিয়ে মাঝের চর থেকে ফেরার পথে ছোট নৌকাটি ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। এ সময় দরগাপাড়ার রকি ও রাশেদ সাঁতরে তীরে ফেরেন। তখন থেকেই নিখোঁজ ছিলেন ওই পাঁচজন।






মন্তব্য চালু নেই