মেইন ম্যেনু

পদ্মাপাড়ে স্বজনদের আহাজারি

মুন্সীগঞ্জে লঞ্চডুবিতে নিহত ও নিখোঁজ স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে পদ্মাপাড়ের বাতাস। ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যাওয়া শরীয়তপুরের এমভি মিরাজ-৪ লঞ্চের জীবিত ও মৃত যাত্রীদের উদ্ধারে মুন্সীগঞ্জের রসুলপুরে যখন উদ্ধারকাজ চলছে, তখন লঞ্চে থাকা যাত্রীদের স্বজনরা ভিড় জমাচ্ছেন নড়িয়ার পদ্মাপাড়ের বিভিন্ন লঞ্চঘাটে।

এমভি মিরাজ-৪ লঞ্চটির অধিকাংশ যাত্রীই শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার পদ্মাতীরবর্তী বিভিন্ন গ্রামের বলে জানা গেছে। নড়িয়ার সুরেশ্বর, চণ্ডীপুর, ওয়াপদা ও সাধুরবাজার লঞ্চঘাট এলাকায় নদীরপাড়ে শত শত মানুষ ভিড় জমিয়েছেন লঞ্চে থাকা স্বজনদের খবর জানতে। কারো কারো মৃত্যুসংবাদ পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন স্বজনরা।

লঞ্চডুবিতে নিহত ১১ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হচ্ছেন নড়িয়ার পাঁচগাঁও গ্রামের লিটন কাজীর স্ত্রী টুম্পা বেগম, ছেলে মাহিন ও মেয়ে সুমনা, কেদারপুরের জামাল সিকদার ও তার ছেলে আবিদ সিকদার, সুরেশ্বর গ্রামের গণি মোল্যা ও তার ছেলে সোহাগ মোল্যা, একই গ্রামের কাঞ্চন হাওলাদার, সেতারা বেগম ও আনোয়ার ঢালী এবং ভেদরগঞ্জ উপজেলার রামভদ্রপুর গ্রামের রিফাত ছৈয়াল।






মন্তব্য চালু নেই