মেইন ম্যেনু

পথ হারিয়ে হিমালয়ে ৪৭ দিন টিকে থাকার গল্প

তাইওয়ানের প্রেমিক যুগল লিয়াং শেং-ইওয়ে (২১) ও লিউ শেন-চুং (১৯) ট্রেকিং করতে ভালোবাসেন। প্রতি বছর বসন্ত মৌসুমে দেড় লাখের বেশি ট্রেকার নেপালের এভারেস্ট ও অন্নপূর্ণা এলাকায় আসেন। সম্প্রতি লিয়াং-লিউ যুগলও বেরিয়ে পড়েন ট্রেকিংয়ে। লক্ষ্য নেপালের হিমালয় এলাকা।

কিন্তু ভাগ্য তাদের সহায় ছিল না। মধ্য নেপালের পাহাড়ি অঞ্চল দাদিংয়ে তারা দুজনেই আটকা পড়েছিলেন এক মাসেরও বেশি সময়। গ্রাম খুঁজে পাওয়ার আশায় নদীর ধার দিয়ে দীর্ঘ পথ হেঁটে বেড়িয়েছেন। কিন্তু লাভ হয়নি। উল্টো ক্লান্তি এসে ভর করে শরীরে।

এক মাসেরও বেশি সময় পার হয়ে গেছে। সঙ্গে থাকা নুডুলস ও আলু পুরিয়ে গেছে। শুধু পানি খেয়ে কাটাতে হচ্ছে। যোগাযোগ করতে পারছিলেন না কারও সঙ্গে। জীবনীশক্তি যেন নিঃশেষ হয়ে গিয়েছিল। তাদের হারিয়ে ৪৭ দিনের মাথায় ভাগ্যদেবী প্রসন্ন হয়। কিন্তু ততদিনে লিউ শেন-চুং (১৯) পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন।

লিয়াং শেং-ইওয়ে বেঁচে গেলেও তারা প্রেমিকা মারা যান ৪৪ দিনের মাথায়। আর তিনটি দিন বেঁচে থাকতে পারলেই হয়তো…। ট্রেকাররা যখন লিয়াং শেং-ইওয়েকে খুঁজে পায় তখন তিনি ঘুমাচ্ছিলেন। শব্দ শুনে তিনি জেগে উঠেন। কাঠমাণ্ডুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নেপালের দুর্গম ওই পাহাড়ি এলাকা থেকে হেলিকপ্টারে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় লিয়াং শেং-ইওয়েকে।






মন্তব্য চালু নেই