মেইন ম্যেনু

নিজের গলা কেটে আরাধ্য দেবীকে উৎসর্গ যুবকের

দৈব মোক্ষ লাভের আশায় ভারতের ঝাড়খণ্ডের রাজরাপ্পার ছিন্নমস্তিকা মন্দিরে আত্মাহুতি দিলেন ভারতের বিহারের বলিহার গ্রামের যুবক সঞ্জয় নট। মন্দিরের গর্ভগৃহের সামনে নিজের গলা কেটে তিনি তার আরাধ্য দেবীকে উত্‍সর্গ করেন। খবর ইন্ডিয়াটাইমসের।

গত মঙ্গলবার সকাল ৬-২০ নাগাদ ভয়াবহ দৃশ্যের সাক্ষী থাকলেন ৫১ শক্তিপীঠের অন্যতম রাজরাপ্পার ছিন্নমস্তিকা মন্দিরের গর্ভগৃহে উপস্থিত ভক্তরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই দিন সকাল ৬টায় মন্দির খোলার পরে রীতি মেনে পুজা শেষ করে অল্প কয়েকজন ভক্তের সঙ্গে গর্ভগৃহে প্রবেশ করেন সঞ্জয়।

সেখানে উপস্থিত পুরোহিতরা জানিয়েছেন, পুজা শেষ করে গর্ভগৃহের বাইরে বিগ্রহের মুখোমুখি শ্বেতপাথরের মেঝের এক কোণে দাঁড়িয়েছিলেন নট। সেখানে দাঁড়িয়ে চোখ বন্ধ করে তিনি কিছুক্ষণ বিড়বিড় করে মন্ত্রোচ্চারণ করেন। তারপরে আচমকা সঙ্গের গামছার মধ্যে লুকিয়ে রাখা ছুরি বের করে নিজের গলায় বসিয়ে দেন। রক্তাপ্লুত অবস্থায় মেঝেয় পড়ে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে ঘণ্টা খানেকের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় রাজরাপ্পা থানার পুলিশ। দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। রাজরাপ্পা থানার কর্মকর্তা অতীন কুমার জানিয়েছেন, মৃতের পকেট থেকে তার নাম, ঠিকানা এবং আত্মীয়দের ফোন নম্বর পাওয়া গিয়েছে। জানা গিয়েছে, মৃত সঞ্জয় নটের বাবা সিআরপিএফ বাহিনীর কনস্টেবল পদে কর্মরত। তিনি বক্সার জেলায় বহাল রয়েছেন। মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর পেয়ে মন্দিরে এসে উপস্থিত হন মৃতের পরিবারের সদস্যরা।

এদিকে সাত-সকালে গর্ভগৃহের সামনে এমন ঘটনার জেরে মন্দির চত্বরজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তিন ঘণ্টা মন্দিরের দরজা বন্ধ রাখার পরে তা ফের ভক্তদের দর্শনের জন্য খুলে দেওয়া হয়। মন্দিরের এক পূজারী জানিয়েছেন, অমাবস্যায় তন্ত্রমতে পুজা করার সময় বহু তান্ত্রিক আঙুলে সূঁচ ফুটিয়ে রক্তদান করলেও ছিন্নমস্তিকা দেবীর মন্দিরে সাম্প্রতিক কালে এমন ঘটনার নজির নেই।






মন্তব্য চালু নেই