মেইন ম্যেনু

নারী আলেমদের প্রথম সম্মেলন

ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের শেরবোনে নারী আলেমদের সর্বপ্রথম সবচেয়ে বড় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশটির সর্বোচ্চ ইসলামি সংস্থার পুরুষরা নিয়মিত ফতোয়া জারি করলেও এই কংগ্রেসটি ছিল নারীদের। মঙ্গলবার শুরু হওয়া তিনদিনব্যাপী ওই কংগ্রেসের সমাপনী দিন ছিল বৃহস্পতিবার।

পশ্চিম জাভার শেরবোনের কিবন জাম্বু ইসলামিক বোর্ডিং স্কুলে অনুষ্ঠিত কংগ্রেসে সেখানকার গভর্নর আহমাদ হেরাওয়ানের স্ত্রী নেটি প্রাসেটানি উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া শেরবোনের শাসক সঞ্জয় পুরদি শাস্ত্র এবং নাহদলাতুল উলামার প্রধান ফকিহ (যিনি ফতোয়া দিয়ে থাকেন) অ্যানজিয়া আর্মানিনি উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনের সংগঠক নিনিক রাহায়উ সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, নারী আলেমরা জানেন ইন্দোনেশিয়ায় মেয়েরা কী ধরনের সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতার শিকার। কাজেই এই নাবালিকাদের সুরক্ষার দায়িত্ব শুধু সরকারের ওপর ছেড়ে দেয়া যায় না।

কেবল কুরআন ও হাদিসের আলোকে নয়, ইসলামি শিক্ষার প্রধান রেফারেন্স হিসেবে এমনকি ইন্দোনেশিয়ার সংবিধানে দেশের সর্বোচ্চ আইনি পাঠ্যক্রমের পাশাপাশি আন্তর্জাতিকমানের ফতোয়া তাদের। বুধবার কংগ্রেসে নিনিক রাহায়উ এসব কথা জানিয়েছেন।

আয়োজকরা মনে করছেন, নারী ওলামা সম্মেলন থেকে দেশের নারী ও শিশুরা শিক্ষা নিতে পারবে। বাস্তবেও তারা যৌন সহিংসতা প্রতিরোধ করতে সক্ষম হবেন। সম্মেলনে অংশ নেয়া আলেমরা তাদের ফতোয়ার সপক্ষে গবেষণা ও জরিপ তুলে ধরেন।

এ কংগ্রেসে নারী আলেমরা সরকারের কাছে মেয়েদের বিয়ের বয়স আইনগতভাবে ১৬ থেকে বাড়িয়ে ১৮ ধার্য করার আহ্বান জানান।

তাদের এই ফতোয়া আইনের বিচারে বাধ্যতামূলক নয়, কিন্তু ইন্দোনেশিয়ায় বেশ প্রভাব রাখবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই