মেইন ম্যেনু

ধর্ষণের জন্য ভারতের জন্য লজ্জার, মাথা অবনত হয়ে যায়: মোদি

ধর্ষণের ঘটনা ভারতের জন্য লজ্জার এবং এই ঘটনায় লজ্জায় মাথানত হয়ে যায় বলে ভাষণে জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শুক্রবার ভারতের নয়াদিল্লির লাল কেল্লায় স্বাধীনতা দিবসে দেওয়া ভাষণে মোদি এসব কথা বলেন।প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রথমবারের মতো মোদি স্বাধীনতা দিবসে ভাষণ দিলেন। ভাষণে মোদি ধর্ষণ প্রতিরোধ ও নারীদের মর্যাদা রক্ষার ওপর গুরুত্ব দেন।

ভারতের প্রত্যেক মা ও বাবাকে আহ্বান জানিয়ে মোদি বলেন, শুধু মেয়েসন্তানকে সংযতভাবে চলার উপদেশ নয়, ছেলেদের চরিত্র গঠনের ওপরও জোর দিতে হবে। তিনি বলেন, আইন অনুসারে ধর্ষণের ঘটনার শাস্তি হবে। তবে অভিভাবকদের ছেলেসন্তানদের শেখাতে হবে কোনটা ভালো আর কোনটা মন্দ।

ভাষণে নরেন্দ্র মোদি দেশে নারীদের কোনো মর্যাদা নেই বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, একবিংশ শতাব্দীতে এসেও নারীদের খোলা জায়গায় প্রাকৃতিক প্রয়োজনে যেতে হয়। অন্ধকার নামার জন্য অপেক্ষা করতে হয়। চার বছরের মধ্যে প্রত্যেক বাড়িতে শৌচাগার নির্মাণের ব্যবস্থা করা হবে বলে মোদি জানান। তিনি আরও জানান, প্রতিটি স্কুলে ছেলে ও মেয়েদের জন্য আলাদা শৌচাগার নির্মাণ করা হবে।

শৌচাগার নিয়ে কথা বলার সময় মোদি এটাও বলেন, লাল কেল্লায় দাঁড়িয়ে শৌচাগার নিয়ে কথা বলার জন্য অনেকে তাঁর সমালোচনা করতে পারেন। তবে তিনি দরিদ্র পরিবারের সন্তান। তাই দরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়ন করার ধাপ এখান থেকেই শুরু করতে হবে।

ভাষণ দেওয়ার সময় মোদি আত্মরক্ষার জন্য বুলেটরোধী কোনো ব্যবস্থা নেননি। বুলেটরোধক কাচে ঘেরা মঞ্চ ছাড়াই তিনি ভাষণ দেন। এ সময় তাঁর কাছে লিখিত বক্তব্যও ছিল না।

সাম্প্রতিককালে এই প্রথমবারের মতো ভারতের কোনো প্রধানমন্ত্রী বুলেটরোধী কাচে ঘেরা মঞ্চ ছাড়া জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিলেন।






মন্তব্য চালু নেই