মেইন ম্যেনু

ধর্মীয় পরিচয় কি? উত্তরে আদালতে যা বললেন সালমান খান

কৃষ্ণহার হরিণ হত্যা মামলায় ভারতের রাজস্থান রাজ্যের যোধপুর আদালতে হাজির হয়েছিলেন বলিউড সুপারস্টার। আদালতে পরিচিয় দিতে গিয়ে ধর্মীয় পরিচয় কি জানতে চায় আদালত। তখন উত্তরে সালমান খান বলেন ভারতীয়। এর আগে অস্ত্র মামলায় কলঙ্কমোচন হয়েছে। তবে এখনও কৃষ্ণসার হত্যা মামলায় অভিযুক্ত তিনি।

সে মামলার শুনানিতেই ডাক পড়েছিল সালমানসহ টাব্বু, সাইফ আলি খানদেরও। আদালতে হাজিরা দিয়ে একগুচ্ছ প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় সালমানকে। প্রশ্নের আগে তার পরিচয় দিতে বলা হলে, তিনি ধর্মীয় পরিচয়ে বলার সময় এ কথা বলেন। এটাই অবশ্য তার বরাবরের উত্তর। যতবার তাকে তার পরিচিতি জিজ্ঞেস করা হয়, তিনি জানান, তার নাম সালমান খান। আর তার একটাই পরিচয় তিনি একজন ভারতীয়।

যদিও এদিন কৃষ্ণসার হত্যা মামলা সম্পর্কে তিনি নিজেকে নির্দোষ বলেই ব্যাখ্যা করেন। তাকে মিথ্যে মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলেও অভিযোগ অভিনেতার। প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ানের ভিত্তিতে এদিন একগুচ্ছ প্রশ্ন করা হয় সালমানকে। যদিও তার বেশিরভাগই ঠিক নয় বলে জানান অভিনেতা। তার দাবি, কৃষ্ণসার হরিণগুলির স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে বলে যে রিপোর্ট পেশ হয়েছিল, সেটিই একমাত্র সঠিক। হরিণকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ এদিন সরাসরি অস্বীকার করেন সালমান।

কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় তার সঙ্গে অভিযুক্ত সোনালি বেন্দ্রে, সাইফ আলি খান, নীলম ও টাব্বুরাও। এক মামলায় ছাড় পাওয়ার পর, এই মামলায় সালমানের পরিণতি কী হয়, সেটাই দেখার। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৩ থেকে ৭ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।






মন্তব্য চালু নেই