মেইন ম্যেনু

নারায়ণগঞ্জ হত্যাকাণ্ড-

দ্রুতবিচার আইনে বিচারের পরামর্শ সুরঞ্জিতের

নারায়ণগঞ্জে ৭ খুনের চাঞ্চল্যকর মামলা দ্রুতবিচার আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সিটিউটে নৌকা সমর্থক গোষ্ঠীর আলোচনা সভায় তিনি এ দাবি জানান।

তিনি বলেন, “আমি আগেও বলেছি এখন আবার বলছি এই চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের গেপ্তার করে দ্রুতবিচারের আওতায় আনা হোক।

আওয়ামী লীগ এই হত্যার দায় নেবে না মন্তব্য করে সুরিঞ্জত বলেন, যে বা যারাই এই ঘটনার সাথে জড়িত থাকুক না কেন, সে যতই শক্তিশালী হোক না কেন এর দায় আওয়ামী লীগ নেবে না। নিরপেক্ষ তদন্ত করে সুষ্ঠু বিচার করা হবে।

অনেক বড় রুই কাতলা পড়ে গেছে দাবি করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, রুই কাতলারা পড়ে গেলে নূর হোসেনও গ্রেপ্তার হবে বলে মনে করি। তবে ‍ন্যায় বিচারের স্বার্থে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করতে হবে।

সুরঞ্জিত বলেন, বিএনপি বলেছে র‌্যাব রাখার প্রয়োজন নেই। অথচ তারাই র‌্যাব তৈরী করেছে, তাদের স্বাধীনতা পুরুষ্কারও দিয়েছেন। এখন বলছে এই র‌্যাব রাখার প্রয়োজন নেই। তিনি বলেন, আপনাদের সুবিধা হলে এক কথা আর অসুবিধা হলে আরেক কথা।

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, আপনারা নারায়ণগঞ্জে সভা করতে চেয়েছেন। এখন সভা করার সময় না। এখন এর সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচার করা পয়োজন। আপনারা এই ঘটনার বিচারে আমাদের সহায়তা করবেন বলে আমি আশা করি।

সংগঠনের উপদেষ্টা হাজী মো. সেলিমের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বাবু সতীশ চন্দ্র রায়, সম্যবাদী দলের নেতা হারুণ চৌধুরী, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান পরিষদের সভাপতি চিত্তরঞ্জন দাস, হুমায়ুন কবির মিজি প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই