মেইন ম্যেনু

তিন র‌্যাব কর্মকর্তাকে গ্রেফতারের প্রক্রিয়া চলছে : স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশ বাস্তবায়নে র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতারের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেছেন, ‘আইনের ব্যাপার-স্যাপার আছে, অফিসিয়ালি আমরা কাজ করছি। তাঁরা নজরদারিতে আছেন। আইনের মাধ্যমে র‌্যাব কর্মকর্তাদের গ্রেফতার করা হবে।

সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ ও প্রতিকার সংক্রান্ত বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন।

সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেন ভারতে চলে গেছেন- র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়াউলের এমন দাবির প্রসঙ্গে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘এ বিষয়ে যাঁরা বক্তব্য দিয়েছেন তাঁরাই ভাল জানেন। নূর হোসেনকে গ্রেফতারে আমরা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা নিচ্ছি। তাকে যেকোনো মূল্যে ধরবো।’

নারায়ণগঞ্জে ঘটনার পর অবসরে পাঠানো র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতারে ব্যবস্থা নিতে রোববার স্বরাষ্ট্রসচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। দণ্ডবিধি বা বিশেষ ক্ষমতা আইনে তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া না গেলে  ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

তিনি কর্মকর্তা হলেন র‌্যাব-১১র সাবেক অধিনায়ক লে. কর্নেল (অব.) তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর (অব.) আরিফ হোসেন ও নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্পের সাবেক প্রধান লে. কমান্ডার  (অব.) এম এম রানা।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশে জঙ্গীবাদ মাঝে মধ্যে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। কারা কোন প্রতিষ্ঠান বা কোন অর্থলগ্নীকারি প্রতিষ্ঠান জঙ্গীদের অর্থায়ন করছে এ নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, কিছু ব্যাংক ফাঁকফোকড় দিয়ে জঙ্গীদের অর্থায়ন করছে প্রাথমিকভাবে আমরা ধারনা করছি।
এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সুনিশ্চিত হয়ে জঙ্গীবাদে অর্থলগ্নী ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই