মেইন ম্যেনু

তারেকের সংবাদ প্রকাশে মিডিয়ার ওপর ক্ষোভ ঝাড়লেন খাদ্যমন্ত্রী

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বক্তব্য প্রকাশ করায় মিডিয়ার ওপর ক্ষোভ ঝেড়েছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেছেন, ‘দেশের গণমাধ্যম কোন নীতিতে (এথিক্সে) একজন পলাতক আসামির বক্তব্য প্রকাশ করছে। এখন সরকার যদি এই সংবাদ প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে তাহলে বলবেন-সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে।’

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগের কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তনে এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ক্ষোভ ঝাড়েন।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে কথা বলার জন্য পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই তারেককে দায়িত্ব দিয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে অর্বাচীন বালক তারেক রহমান বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে মন্দ কথা বলছে। তাকে এসব কথা বলার জন্য নিযুক্ত করেছে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। আইএসআই তাকে দিয়ে তথ্য সন্ত্রাস করে নতুন প্রজন্মকে অন্ধকারে নিমজ্জিত করতে চায়।’

কামরুল বলেন, ‘৭১’র ঘাতকদের বিচার করা হচ্ছে। এতে পাকিস্তানের স্বার্থ রক্ষা হচ্ছে না। বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করা যায়নি। তাই পাক সরকার তারেক রহমানকে দিয়ে তথ্য সন্ত্রাস ও মিথ্যাচার করাচ্ছে।’

খাদ্যমন্ত্রী একই সঙ্গে তারেক রহমানকে পাগল, কুলাঙ্গার, মিথ্যাবাদী ও জ্ঞানপাপী বলেও উল্লেখ করেন ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অভিভাবকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এসব ইবলিশদের কথার প্রভাব যাতে আপনাদের সন্তানদের ওপর না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে ২১তম জাতীয় শিশু দিবসে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। সভাপতিত্ব করেন শিরিন আক্তার মঞ্জু।






মন্তব্য চালু নেই