মেইন ম্যেনু

জ্বরের ঘরোয়া দাওয়াই

ঈদের লম্বা ছুটি কাটিয়ে ঢাকায় ফিরে অনেকেই জ্বরে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। এর মূল কারণ হিসেবে আবহাওয়ার পরিবর্তনকেই দায়ি করা যায়। তাই জ্বর হওয়াটা স্বাভাবিক না হলেও স্বাভাবিক বিবেচনা করা যায় আবহাওয়া পরিবর্তন সাপেক্ষে। এখন কথা হচ্ছে জ্বর হলে অনেকেই সামান্য বিষয় বিবেচনা করে ডাক্তারের কাছে যেতে চান না এমনকি ওষুধও খাওয়ার প্রয়োজন মনে করেন না কিংবা ওষুধ সেবন করটাই পছন্দ করেন না। তারা ওষুধের পরিবর্তে জ্বর কমানোর জন্যে খেতে পারেন ঘরোয়া কিছু খাবার যা আমরা স্বাভাবিক সময়েই খেয়ে থাকি। এমন কিছু খাবারের গুণগত বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জেনে রাখাটা মন্দ নয়।

আদা: চা অথবা গরম পানিতে লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে আদা কুচি খেতে পারেন। এটি ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশনের সঙ্গে লড়াই করে শরীর সুস্থ করে তুলবে।

তুলসীপাতা: ১চা চামচ জিরা এবং ৪ থেকে ৬টা তুলসীপাতা এক গ্লাস পানিতে নিয়ে সেদ্ধ করে খেলে জ্বর দ্রুত কমবে।

চালের সুজি: জ্বরের সময় আরেকটি উপকারী খাবার হলো চালের সুজির সঙ্গে সামান্য আদাকুচি ও সেদ্ধ করা সবজি। এসব খাবার পেটের ক্ষুধাও দূর করবে।

কিসমিস: জ্বরে আক্রান্ত রোগীর জন্য কিসমিস একটি উপকারি খাবার। কিসমিসে বিদ্যমান ভিটামিন-সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা দ্রুত সুস্থ হতে সাহায্য করে।

গোলমরিচ ও লবঙ্গ: নরম ভাত,খিচুড়ি অথবা আলু সেদ্ধর সঙ্গে একটু গোলমরিচ ও লবঙ্গ মিশিয়ে খেলে জ্বরে উপকার পাওয়া যায়।

টমেটো ও গাজরের স্যুপ: টমেটো ও গাজরের স্যুপ খেলে জ্বর থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যায়।






মন্তব্য চালু নেই