মেইন ম্যেনু

ছেলের গায়ের রং কালো, বিয়ের মণ্ডপ ছাড়লেন কনে!

গায়ের রং কালো বলে বিয়ের মণ্ডপ থেকে খালি হাতে ফিরতে হল পাত্রকে। শুধু তাই নয়, পণের যাবতীয় জিনিস না ফিরিয়ে দেওয়া পর্যন্ত আটকে রাখা হল বরযাত্রীদের। বিহারের বেগুসরায় জেলার চক্কা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এলাকারই এক যুবকের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে ঠিক করেছিল বাড়ির লোক। বিয়ের রাতে ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে মেয়ের বাড়িতে হাজির হয় বর ও বরযাত্রী। সব ঠিকঠাকই চলছিল। কিন্তু ছাদনাতলায় বরকে দেখে বেঁকে বসে কনে। বাড়ির লোকের চাপে বরমালা খানা পরিয়ে দিলেও বিয়ের বাকি আচার পালন করবে না বলে জেদ ধরে সে। এই বিয়ে সে কিছুতেই করবে না বলে বাড়ির লোককেও জানিয়ে দেয়। ছেলের বাড়ির লোকজন প্রথমে বেশ দাপট দেখালেও পড়ে কনের জেদের কাছে হার মানতে বাধ্য হন। এরপরই ওই মেয়ে সাফ জানিয়ে দেয়, বিয়েতে পণ হিসাবে যেসব সামগ্রী দেওয়া হয়েছে তা ফিরিয়ে দিতে হবে। না হলে বাড়ি ছেড়ে বরযাত্রীর কেউ বের হতে পারবে না। শেষমেশ সব সামগ্রী ফিরিয়ে দিয়ে মুক্ত হয় ছেলের বাড়ির লোক।
অবশ্য জেদ করে নিজের বিয়ে ভাঙলেও মেয়ের বাড়ির লোক হাত গুটিয়ে বসে থাকেননি। জিতেন্দ্র কুমার নামে নিমন্ত্রিত এক যুবকের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দেন। বিহারে এমন ঘটনা অবশ্য নতুন কিছু নয়। ছেলের গায়ের রং কালো, অঙ্কে কাঁচা হওয়া বা ড্রেসিং সেন্স খারাপ হওয়ার কারণে বহু মেয়েই বিয়ে ভেঙে দিয়েছে।
সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন






মন্তব্য চালু নেই