মেইন ম্যেনু

ছেলেকে মার্কিন দূত নিয়োগ সৌদি বাদশার

যুবরাজ খালেদ বিন সালমান বিন আব্দুল আজিজকে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সৌদি সরকার।

সৌদি বিমান বাহিনীর পাইলট খালেদ আব্দুল্লাহ বিন ফয়সাল বিন তুর্কির স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।

যুবরাজ খালেদ সৌদি বিমান বাহিনীর এফ-১৫ যুদ্ধবিমানের পাইলট। মিসিসিপির কলোম্বাস এয়ারফোর্স বেস থেকে তিনি স্নাতক করেন। ২০১৪ সালে আইএসবিরোধী আন্তর্জাতিক জোটের হয়ে যুদ্ধে অংশ নেন তিনি।

রাজকীয় এক বার্তাকে উদ্ধৃত করে সৌদি প্রেস এজেন্সির প্রতিবেদনে যুবরাজ খালেদের নিয়োগ প্রসঙ্গে বলা হয়, ‘যুবরাজ আব্দুল্লাহ বিন ফয়সাল বিন তুর্কিকে অপসারণ করে যুবরাজ খালেদ বিন সালমান বিন আব্দুল আজিজকে যুক্তরাষ্ট্রে রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।’

এদিকে সৌদি-আমেরিকান পাবলিক রিলেশন অ্যাফেয়ার্স কমিটি (এসএপিআরএসি) দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী ও ভালো করার পক্ষে মত দিয়েছে।

নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত সৌদি দূত যুবরাজ খালেদ সম্পর্কোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে বিশ্বাস করে দু’দেশের কূটনৈতিক মহল।

এসএপিআরএসি’র প্রেসিডেন্ট সালমান আল আনসারি এএফপিকে বলেন, খালেদ খুবই গোছালো, সচেতন, তরুণ এবং সক্রিয় ব্যক্তিত্বের অধিকারী। তার মাধ্যমে দু’দেশের সম্পর্ক নতুন মাত্রা পাবে।

অবশ্য ছেলে খালেদ সম্পর্কে ২০১৪ সালে সৌদি বাদশা সালমান বলেছিলেন, ‘আমার ছেলেরা, পাইলট, তারা তাদের ধর্ম, মাতৃভূমি এবং রাজার প্রতি আনুগত্যশীল।’






মন্তব্য চালু নেই