মেইন ম্যেনু

চেয়ারে বসার আড়াই ঘণ্টার মধ্যে ফের বরখাস্ত মেয়র আরিফ

দীর্ঘ কারাবাসের পর সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের আড়াই ঘণ্টার মাথায় আবার বহিষ্কার হলেন আরিফুল হক চৌধুরী।

রোববার দুপুর ২টায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে ফ্যাক্সে পাঠানো চিঠির মাধ্যমে আরিফুলকে সাময়িক বহিষ্কারের বার্তা জানানো হয়।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মেয়রের কার্যালয়ে যান আরিফুল।

মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মাহমুদুল আলম ওই চিঠিতে স্বাক্ষর করেন। এতে উল্লেখ করা হয়, একটি মামলার অভিযোগপত্র বিশেষ ট্রাইব্যুনালে গৃহীত হওয়ায় সিটি করপোরেশন আইন-২০০৯-এর ১২ ধারা অনুযায়ী আরিফুল হক চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এই চিঠি আসার পর আরিফুল হক চৌধুরী প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেন, সিলেট নগরবাসীর ভোটকে তোয়াক্কা না করে রাজনৈতিকভাবে সরকার মানুষকে তাচ্ছিল্য করেছে। এই বহিষ্কারাদেশকে সম্পূর্ণ অন্যায় আখ্যা দিয়ে আদালতে যাওয়ার কথা বলেছেন তিনি।

গত ২৩ মার্চ সিলেট সিটি করপোরেশনের বিএনপির মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার বিভাগের আদেশ স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ।

আদালত মেয়র আরিফুলকে বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) সম্পূরক অভিযোগপত্র ২০১৪ সালের ১৩ নভেম্বর হবিগঞ্জের আদালতে দাখিল করলে আরিফুল হকসহ নতুন করে নয়জন অভিযুক্ত হন। ৩০ ডিসেম্বর আরিফুল হবিগঞ্জ আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পরের বছর ৭ জানুয়ারি আরিফুলকে মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে চলতি বছর ৪ জানুয়ারি তিনি কারামুক্ত হন।






মন্তব্য চালু নেই