মেইন ম্যেনু

চালককে কুপিয়ে আহত করে ইজিবাইক ছিনতাই

হামিদা আক্তার : ইজিবাইক (অটোগাড়ী) চালককে কুপিয়ে মারাক্তক আহত করে ইজিবাইকটি ছিনতাই করে পালিয়েছে ছিনতাইকারীরা বলে খবর পাওয়া গেছে। জানা যায়, ইজিবাইকে চালক আবু বক্কর সিদ্দিক (৩২) কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে এলাকাবাসী হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করেছেন। তিনি বর্তমানে গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎস্বাধীন রয়েছেন। তিনি নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের রুপাহারা গ্রামের মৃত চাঁন মিয়ার পুত্র। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে শুক্রবার দিনগত রাতে আনুমানিক ৯টার দিকে ডিমলা সদরের শহীদ মিনার চত্বর (কাউসার মোড়) হতে ৩ ব্যক্তি (যুবক) যাত্রীবেশে পাশ্ববর্তী জলঢাকা উপজেলার কালীগঞ্জ বাজারে যাবার কথা বলে ইজিবাইকে উঠেন। যাত্রী নিয়ে ইজিবাইক চালক কালীগঞ্জে পৌঁছালে ওই ৩জন যুবক সেখানে না নেমে আরও ২জন যুবক গাড়িতে উঠে গোলনা আলুর কোলষ্টোরের সামনে যেতে বলেন। তাদের কথা মত চালক সিদ্দিক আলু কোলেষ্টারের পাশের কাঁচা রাস্তা দিয়ে বেশ কিছু দূর যেতেই নির্জন এলাকায় যাত্রী বেশী ছিনতাইকারীরা তার কাছ থেকে ইজিবাইকটি ছিনতাই করে নেন। এ সময় চালক আবু বক্কর চিৎকার করে ইজিবাইকটির টানা হেচরা করায় তার হাত-পা বেঁধে অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দ্যেশে এলোপাতারি মারতে থাকে। এ সময় চালক প্রাণ রক্ষায় প্রচন্ড আত্বচিৎকার করায় স্থানীয়রা ছুটে আসলে ছিনতাইকারীরা ঘটনাস্থল থেকে ইজিবাইকটি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী চালককে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে হাসপাতালে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন চিকিৎসক। কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ অনুপ কুমার রায় বলেন, আহত ব্যক্তির মাথায়, চোখের নিচে, বুকে ও হাতে প্রচন্ড আঘাত পেয়েছেন,তার শরীরের একাধিক স্থানে সেলাই দেয়া হয়েছে। ডিমলা থানার উপ-পরিদর্শক সাহাবুদ্দিন জানান, ঘটনাটি শুনে হাসপাতালে গিয়ে আহত চালককে দেখে চিকিৎসা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। তিনি বলেন, যেহেতু ঘটনাটি জলঢাকা উপজেলার সীমানায় ঘটেছে তাই জলঢাকা থানায় অভিযোগ দিতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই