মেইন ম্যেনু

ঘুরে দাঁড়াতে মানসিক দৃঢ়তা চান ধোনি

২০১১ সালের দুঃসহ স্মৃতি মাটিচাপা দিয়ে এবার ইংল্যান্ড সিরিজ স্বপ্নের মতো শুরু করেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। ট্রেন্টব্রিজে প্রথম টেস্ট ড্রয়, লর্ডসে ২৮ বছর পর ভারতীয়দের বিজয় পতাকা উড়েছে। পক্ষান্তরে কাটাছেড়া করা হয়েছে ইংলিশদের। রোজবোলের সুবিধাটাও পাওয়ার কথা ছিল ধোনিদেরই। কিন্তু উল্টো তারাই ২৬৬ রানে পরাজয়ের লজ্জায় ডুবল। যারা ইংলিশ অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুকের সমালোচনায় মুখর ছিলেন তারা নিশ্চই আগামী কয়েকদিন মুখে তালা দিয়েই রাখবেন।

এমন হারে এবার ধোনির পেছনে যে কেউ লেগে পড়বে না তার কোনো গ্যারান্টি নেই। বরাবরই ভাবলেষহীন ভারত অধিনায়ক সেসবে পাত্তা দিলে তো! তিনি পরাজয় নিয়ে অতবেশি ভাবারও কোনো কারণ দেখছেন না। বরং পরের টেস্ট ম্যানচেস্টারেই ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করছেন ধোনি। বললেন, ‘ম্যানচেস্টারেই আমরা সিরিজে ফিরতে চাই। হ্যাঁ, সিরিজটা ১-১ হয়ে যাওয়ার জন্য চিন্তিত। এই জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য চাই মানসিক দৃঢ়তা।’

ম্যানচেস্টার টেস্টের আগে ভারত অধিনায়ক সতীর্থদের ইতিবাচক থাকারই পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বেশি ভাবনা চিন্তার দরকার নেই। নিজেরা নিজেদের উজ্জীবিত করে সিরিজে ফিরবো। শুধু একটু ইতিবাচক মনোভাব জরুরি।’

এদিন ধোনি সোজাসাপ্টাই বলেছেন, পাঁচ বোলার খেলিয়ে তিনি কোনো সুফল পাননি। ‘পাঁচ বোলার খেলিয়ে সুবিধা পাইনি। কারণ পঞ্চম বোলার হিসেবে স্টুয়ার্ট বিনিকে খুব বেশি ব্যবহার করতে পারিনি।’

মূলত ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত মঈন আলী। স্পিন করেন অনিয়মিত। সেই অনিয়মিত স্পিনারের কাছেই ধসে গেল ভারত। মঈনের প্রশংসা করতে গিয়ে ধোনি বলেন, ‘খুবই ভালো বল করেছে মঈন। ওর সব বল আমাদের ঝামেলায় ফেলেনি। ওভারে দু-একটা বল ঘুরেছে, লাফিয়েছে। ওই সময় আমাদের উচিৎ ছিল ধৈর্য্য ধরে উইকেটে পড়ে থাকা। যেটা আমাদের ব্যাটসম্যানরা দেখাতে পারেনি।’






মন্তব্য চালু নেই