মেইন ম্যেনু

ঘুমের ভঙ্গী বলে দেবে সম্পর্কের ধরন

সম্পর্কে টানাপোড়েন কোথায় নেই! তারপরেও সম্পর্ক নামক মিষ্টি বন্ধনে নিজেকে আবদ্ধ রাখতে চায় সবাই। পুরাতন সম্পর্কে চায় নতুনের মাত্রা দিতে আর নতুনকে চায় আরো ঢেলে সাজাতে। সম্পর্কে রাগ, অনুরাগ থাকবেই। তবে তা যতটুকু পারুন নিজেদের মধ্যেই রেখে মানিয়ে নিন আর তার সহজ সমাধান খুঁজে বের করুন।

সমস্যা হলে আপনার সঙ্গীর কাছে খুলে বলুন। যদি মুখে না বলা যায় আর আপনার মনে হয় আপনার সম্পর্কে সমস্যা যাচ্ছে তাহলে আপনি তা খুব সহজেই বুঝতে পারবেন আপনার আর আপনার সঙ্গীর ঘুমের সময়। ঠিক তেমনি আপনার সঙ্গীর সাথে সম্পর্ক কতটুকু মধুর যাচ্ছে তাও আপনি বুঝতে পারবেন ঘুমের ধরন দেখেই।

হানিমুন হাগ : যখন সদ্য বিবাহিত যুগল তাদের ভালোবাসার সময় কাটায় কিংবা দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর তাদের দেখা হয় তখন ঘুমের মাঝে এই ধরন দেখা যায়। এখানে সঙ্গী তার ভালোবাসার মানুষের সাথে তাদের ভালো সময়ের স্মৃতি নিয়ে গল্প করে আর একে অপরের খুব কাছাকাছি থাকে। এইভাবে ঘুমের ধরন সদ্য বিবাহিত দম্পতিদের মাঝে বেশ দেখা যায়।

ডায়ালগ পজিশন : এটি মূলত তাদের মাঝেই দেখা যায় যাদের মাঝে সম্পর্কের ভীত খুব শক্ত। তারা তাদের একজনের কথা অন্য আরেকজন খুব সহজেই বুঝতে পারে। এইভাবে ঘুমালে আপনি এবং আপনার সঙ্গী একে অন্যের ঠিক মুখোমুখি শুয়ে থাকেন যাতে আরো ভালোবাসার সৃষ্টি হয়।

স্ট্রাগেজিং : এইভাবে ঘুমালে নিজেদের মধ্যে থাকা সম্পর্ক আরো মিষ্টি হয়। এখানে বোঝা যায় যে আপনার ভালোবাসার মানুষটি আপনার পক্ষে আছে। ছেলেদের নেতৃত্ব দেবার একটা ক্ষমতা এই স্থানে প্রকাশ পায়। এখানে ছেলেদের হাতের উপরে মেয়েরা ঘুমিয়ে থাকে এবং ভালোবাসার মানুষের কাছে তার সংস্পর্শে এভাবে ঘুমাতে বেশিরভাগ মেয়েই পছন্দ করে।

আই চেরিশ ইউ : ঘুমাবার সময় প্রিয় মানুষটির সংস্পর্শে থাকা। তাকে কিছুটা কাছে পাওয়া। ব্যস্ততার জন্য যাদের মাঝে সময় খুব কম থাকে তাদের ঘুমের অভ্যাস এমনটা হয়ে থাকে। ঘুমিয়ে যাবার পরেও তাদের একজনের পিঠের সাথে অন্য আরেকজনের পিঠ যুক্ত থাকে। আর এভাবেই ভালোবাসা অক্ষুণ্ন থাকে।






মন্তব্য চালু নেই