মেইন ম্যেনু

ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে আড়ষ্টতা কাটিয়েছিলেন বিনোদই, স্মৃতিচারণে শাবানা

এইতো তিন দিন আগেই প্রয়াত হয়েছেন সাতের দশকের মন মাতানো অভিনেতা বিনোদ খান্না। এবার তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করলেন সেই সময়কার বিনোদের সঙ্গে জুটি বেঁধে দর্শক মাতানো নায়িকা শাবানা। জানাচ্ছেন, ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে তাঁর জড়তা কাটিয়ে দিয়েছিলেন বিনোদই।

শাবানা বলেন, তখন ‘শক’ ছবির শুটিং চলছে। পরিচালনার ভার অরুণা আর বিকাশের। ব্যক্তিগত জীবনে তাঁরা স্বামী-স্ত্রী। ছবির একটি দৃশ্যে নায়ক-নায়িকাকেও তাঁরা চাইছেন একেবারে একান্ত ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে। কিন্তু কিছুতেই পুরো ব্যাপারটায় স্বাভাবিক হতে পারছিলেন না শাবানা। আড়ষ্টতা তাঁকে জড়িয়ে ধরছিল। দূর থেকে পুরো ব্যাপারটা দেখছিলেন বিনোদ। বুঝলেন, ঠিক কোথায় অসুবিধা হচ্ছে শাবানার। এরপর রিহার্সাল পর্ব শুরু হতে উপায় বের করলেন তিনিই। শাবানাকে বিশেষভাবে ধরে পরিচালককে জিজ্ঞেস করলেন, এভাবে পোজ দিলে কি ক্যামেরায় ঠিকঠাক আসছে? এরপর শাবানার একটি হাত তুলে ধরে জানতে চান, নাকি হাতটা আর একটু উপরে তুললে ক্যামেরায় ভাল আসবে? মুহূর্তে শাবানার মনে হয়, যা ছিল ঘনিষ্ঠতা, ক্যামেরার সামনে তা যেন প্রযুক্তি হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে জড়তা মনে ছিল, তা কেটে যায়। এরপরই স্বাভাবিক অভিনয়ে ফিরে আসে তাঁর। আর সেই জুটি এবং সেই ছবিকে আজও মনে রেখেছে সিনেপ্রেমী দর্শক।

‘অমর আকবর অ্যান্টনি’র সময়ও বিনোদের জোরাজুরিতেই নায়িকা হয়েছিলেন শাবানা। অমিতাভ ও ঋষি কাপুরের জন্য নায়িকা নির্বাচন হয়েছিল। কিন্তু বিনোদের কোন নায়িকা ছিল না। তা নিয়ে প্রবল আপত্তি জানান তিনি। এরপরই শাবানাকে বিনোদের নায়িকা করা হয়। সে সব কথাই আজ মনে পড়ছে তাঁর। ক্যারিয়ারের উড়ন্ত বেলায় যাঁদের সঙ্গে কাটিয়েছেন তাঁদের এভাবে চলে যাওয়া কষ্ট দিচ্ছে শাবানাকে। জানাচ্ছেন, এই সব ঘটনাই মনে করিয়ে দিচ্ছে তাঁর সময়ও ফুরিয়ে আসছে। মৃত্যুর কথা যেন মনে করিয়ে দিচ্ছে প্রিয়জনের মৃত্যুই।






মন্তব্য চালু নেই