মেইন ম্যেনু

গুম-খুনে বিব্রত সরকার

একের পর এক অপহরণ, গুম, খুনসহ দেশের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিতে সরকারে অস্বস্তি ও দুশ্চিন্তা বাড়ছে। বিশেষত নারায়ণগঞ্জে সাতজনকে অপহরণ ও খুনের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সরকারদলীয় লোকজন জড়িত থাকার অভিযোগ এ দুশ্চিন্তা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। এখনই পরিস্থিতির রাশ টানতে না পারলে গণবিস্ফোরণের আশঙ্কা ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে।

দৈনিক কালের কণ্ঠ তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, দেশজুড়েই এখন জনমনে অপহরণ, গুম, খুন আতঙ্ক বিরাজ করছে। পরিস্থিতি যত নাজুকই হোক, তা নিয়ন্ত্রণে সরকার সক্ষম- এমন আপ্তবাক্যও আর জনগণকে স্বস্তি দিতে পারছে না। তদুপরি সরকারের পক্ষ থেকেও বিষয়টি নিয়ে জোরালো অবস্থান ততটা দৃশ্যমান নয়। বিষয়টি সরকারের ভাবমূর্তিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

বিরাজমান পরিস্থিতি নিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর দুজন সদস্য ও সম্পাদকমণ্ডলীর এক নেতা বলেন, এসব অঘটন ঘটতে থাকলে ভবিষ্যতে গণবিস্ফোরণের আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে থাকলে দেশের জনগণ সরকার থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে। তেমনি বিভিন্ন মহল এক হয়ে সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নামার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও ধারণা তাঁদের। নীতিনির্ধারণী সূত্র আরো জানায়, এ ইস্যুতে সরকার নতুন করে বিদেশি চাপে পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সূত্র মতে, ক্ষমতাসীনরা চাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের ঘটনাটি সরকারবিরোধী আন্দোলনের বড় ইস্যু হয়ে ওঠার আগেই তা ধামাচাপা পড়ুক। আপাতত কোন কৌশল অবলম্বন করলে বিষয়টি থেমে যাবে, তা নিয়ে সরকারের নীতিনির্ধারণী পর্যায় ভাবছে। সামগ্রিক বিষয় নিয়ে শিগগিরই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলন করে একটি ব্যাখ্যা দেবেন। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি খুব নাজুক নয়- এমন যুক্তি প্রতিষ্ঠিত করতে সংবাদ সম্মেলনে গুম-অপহরণ নিয়ে বিদেশি পরিসংখ্যান তুলে ধরা হতে পারে বলে জানা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এক সদস্য বলেন, ৫ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনের পর সরকারকে এমনিতেই দেশ-বিদেশে নানা অস্বস্তিকর প্রশ্নের জবাব দিতে হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে গুম-অপহরণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় দেশ-বিদেশের জিজ্ঞাসার মধ্যে এটিও যোগ হচ্ছে। শিগগিরই এর লাগাম টানতে হবে। কারণ লাগামহীন গুম ও অপহরণে শুরুতেই সরকারের ব্যর্থতার পাল্লা ভারী হচ্ছে।

জনমনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে আপাতত সরকারকে নির্মোহভাবে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা। এসব ঘটনা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র- এমনটা ইঙ্গিত করে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত কালের কণ্ঠকে বলেন, দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র থাকবে। এগুলো ভেদ করেই সরকারকে চলতে হবে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই