মেইন ম্যেনু

গাজা থেকে সেনা প্রত্যাহার করছে ইসরায়েল

গাজা উপত্যকা থেকে সকল সেনা সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইসরায়েল।

মঙ্গলবার দিনের প্রথম প্রহরেে ইসরায়েলি কর্মকর্তারা লে. কর্নেল লার্নার সাংবাদিকদের জানান, ৭২ ঘণ্টার যুদ্ধবিরতি শেষ হওয়ার আগেই তারা তাদের সমস্ত সৈন্যদের গাজা থেকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেবেন।’ মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সাকল ৮টা থেকে গাজায় ওই যুদ্ধবিরতি শুরু হয়েছে।

ইসরায়েলি সংবাদ মাধ্যমে দাবি করা হয়েছে, গাজায় সামরিক অভিযানের প্রধান লক্ষ্য ছিল জঙ্গিদের সুরঙ্গগুলো ধ্বংস করা। ইতিমধ্যে তাদের ওই লক্ষ্য পূরণ হয়েছে বলেও তারা দাবি করেছে।

গাজায় ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে একটি স্থায়ী অস্ত্রবিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার আগেই সেনা প্রত্যাহারের ঘোষনা দিল তেলআবিব সরকার।

মঙ্গলবার এই ঘোষণা দেয়ার সময় কর্নেল লার্নার আরো বলেন,‘ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যদের গাজা থেকে সরিয়ে নিয়ে উপত্যকার বাইরে একটি প্রতিরক্ষামূলক অবস্থানে মোতায়েন করা হবে। আমরা সেখান থেকেই নিজেদের আত্মরক্ষার দিকে নজর রাখব।’

ফিলিস্তিনি জঙ্গিদের রকেট হামলা প্রতিরোধের অজুহাত তুলে গত ৮ জুলাই থেকে গাজায় ‘অপারেশন প্রোটেকটিভ এজ’ নামের অভিযান শুরু করেছিল ইসরায়েল।

এর আগে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, গাজা হামলা সফল হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েলি সংবাদ মাধ্যম। তারা বলছে, গাজা হামলার প্রধান লক্ষ্য ছিল সেখানে জঙ্গিদের ব্যবহৃত সুরঙ্গগুলো ধ্বংস করা এবং সে কাজে ইসরায়েলি সেনারা সফল হয়েছে।

উল্লেখ্য, গাজায় গত চার সপ্তাহের ইসরায়েলি হামলায় ১৮ শ ফিলিস্তিনী নিহত হয়েছে বলে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। নিহতদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক। ইসরায়েলের পক্ষে নিহত হয়েছে মাত্র ৬৭ জন। এদের বেশিরভাগই সেনা সদস্য। এছাড়া ইসরায়েলে এক থাই নাগরিক নিহত হওয়ারও খবর পাওয়া গেছে।






মন্তব্য চালু নেই