মেইন ম্যেনু

খুনিদের গণতান্ত্রিক অধিকার থাকতে পারে না

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রী মো. নাসিম বলেছেন, ‘একাত্তর ও ৭৫ এর খুনি এবং তাদের দোসরদের কোনো গণতান্ত্রিক অধিকার থাকতে পারে না। উদার গণতন্ত্রের নামে তাদের অনেক ছাড়া দেয়া হয়েছে, যার ফলশ্রুতিতে হারিয়েছি আমরা জাতির পিতাকে। ঘটেছে ২১ আগস্টের মতো নির্মম ঘটনা।’

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘২১ আগস্ট বাংলাদেশ আয়োজিত’ ‘আগস্ট বাঙালি জাতির শোকের মাস’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের দ্রুত বিচার কার্যকর ও একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনাকারীদের বিচারের দাবিতে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

নাসিম বলেন, ‘দেশ ও জনগণের স্বার্থে অবশ্যই গণতন্ত্র থাকবে। কিন্তু রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এ দেশে ৭১ ও ৭৫ এর খুনি এবং তাদের দোসরদের কোনো গণতান্ত্রিক অধিকার থাকতে পারে না। উদার গণতন্ত্রের নামে তাদের আর কোনো ছাড় দেয়া হবে না।’

বিশ্বজিৎ ও নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা দেখিয়ে দিয়েছেন অপরাধীদের কিভাবে বিচার করতে হয়। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, কোনো গণতান্ত্রিক দেশ এমন চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের বিচার করতে পারেনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যারা ১৫ আগস্ট ভুয়া জন্মদিন পালন করে তাদের দ্বারা কোনো হত্যাকাণ্ডের বিচার আশা করা যায় না। ২১ আগস্ট বোমা হামলার সময় বিএনপি ক্ষমতায় ছিল। কিন্তু এ হামলার সামান্যতম তদন্ত পর্যন্ত করেনি তারা।’

সভায় খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত, জঙ্গি-তালেবান একই সূত্রে গাঁথা। তদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। সামনে আরও ভয়াবহ দিন আসছে। তারা আবার দেশে তালেবানি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে আন্দোলন শুরু করতে পারে। তাই এই জঙ্গিদের ব্যাপারে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

ঢাবি উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মো. আবু কাওসার, সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই