মেইন ম্যেনু

‘কোনো দলকে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থন দিচ্ছে না’

বাংলাদেশে নির্দিষ্ট কোনো রাজনৈতিক দলকে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থন দিচ্ছে না বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট। তবে তিনি বলেন, একটি সুষ্ঠু রাজনৈতিক প্রক্রিয়া গড়ে তোলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করছে।

বাংলাদেশে তার দায়িত্ব পালনের দুবছর পূর্তি উপলক্ষে বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় তিনি ফেসবুক লাইভে এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এসব কথা বলেন। বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এক ঘণ্টার লাইভে দুই শতাধিক মন্তব্যের মধ্যে ২৪টির উত্তর দেন বার্নিকাট।

মোহাম্মদ ফরহাদ নামের ফেসবুক ব্যবহারকারীর মন্তব্যের উত্তরে বার্নিকাট বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে নির্দিষ্ট কোনো রাজনৈতিক দলকে সমর্থন করছি না। আমরা বাংলাদেশিদের সহায়তা করতে কাজ করছি, যাতে একটি সুষ্ঠু রাজনৈতিক প্রক্রিয়া গড়ে ওঠে।’

লাইভে এসে বার্নিকাট প্রথমেই বলেন, ‘আজ বাংলাদেশে আমার দুই বছরের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পেরে অভিভূত।’

ফেসবুক ইউজার মুসা তার মন্তব্যে বার্নিকাট ও তার আমেরিকান সঙ্গীদের অভিনন্দন জানান। সেই সঙ্গে তিনি মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও সহিংসতা অবসানে রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে কার্য‌্করী ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

মুসার উত্তরে বার্নিকাট বলেন, যুক্তরাষ্ট্র মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে মিয়ানমারসহ বিশ্বের সব দেশেই সোচ্চার ভূমিকা রাখছে। সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন না চালিয়ে তাদের ধর্মীয় স্বাধীনতা, স্বাধীনতার আন্দোলন, সামাজিক সেবা, স্বাভাবিক জীবনযাত্রা এবং আইন অনুযায়ী তাদের সঙ্গে আচরণ করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ইকবাল মালিক ইকবাল লেখেন, ‘বাংলাদেশে যত রাষ্ট্রদূত এসেছে তাদের মধ্যে আপনি বেশি জনপ্রিয়। এর কারণ হিসেবে আপনি কী মনে করেন?’

বার্নিকাট বলেন, আমি মনে করি বাংলাদেশিরা অতিথিপরায়ণ জাতি। জনপ্রিয়তা পেয়েছি ঠিকই কিন্ত আমার কাজ রাষ্ট্রদূতের। জনপ্রিয় হওয়ার চেয়ে রাষ্ট্রদূতের কাজটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

দ্বীন হায়দার লেখেন, পেশাগতভাবে যথাযথ দক্ষতা থাকার পরও আপনার অ্যাম্বাসি থেকে ৯০ শতাংশ ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয়েছে। বাংলাদেশিদের যুক্তরাষ্ট্র সফরের সুযোগ দেওয়ার জন্য তিনি আহ্বান জানান।

উত্তরে বার্নিকাট বলেন, প্রতিবছর যুক্তরাষ্ট্রে হাজার হাজার বাংলাদেশির ভিসা দেওয়া হয়। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাড়ে ছয় হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছে। পর্যটন শিল্পে যুক্তরাষ্ট্র এখন দ্বিতীয় বৃহত্তম। তাই বিশ্বের সব দেশের নাগরিকদের আমাদের দেশ ভ্রমণের আহ্বান জানাই।

দুই শতাধিক মন্তব্যকারীর মধ্যে ২৪ জনের মন্তব্যের উত্তর দেন বার্নিকাট। যাদের মন্তব্যের উত্তর দিয়েছেন, তারা হলেন- লিপি খোন্দকার, তোহিদুর রাহমান, তানভির সিদ্দিক, আব্দুল্লাহ আব্দুলাহ, সজিব মজুমদার, মাইনুল আলম, একেএম মইনুদ্দিন, মুসা, ইকবাল মালিক ইকবাল, ইত্তাহাদ ফেরদৌস সজিব, মাজিদুল হাসান, দ্বীন হায়দার, মোহাম্মদ ফরহাদ, আক্কাস জামান, এসআই খোন্দকার, জাহাঙ্গীর উদ্দিন, পিকে সিনহা, মোহাম্মদ আবুল কালাম, এমডি আসিফ, ইসতিহাক আহম্মেদ তামিম, চৌধুরী সুমের আকিব, নিরন্তর সজিব ও সালমান প্রধান।






মন্তব্য চালু নেই