মেইন ম্যেনু

কেক কাটার সময় খালেদার চেহারা দানবীয় হয় : কামরুল

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘১৫ আগস্ট বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া যখন ভূয়া জন্মদিনের কেক কাটেন তখন তার চেহারা দানবীয় ও বীভৎস হয়ে ওঠে। তার মানসিক চেহারা থাকে না।’

খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এ মাস শোকের মাস। দয়া করে এ মাসে যথাযথ ভাব গাম্ভীর্য বজায় রাখবেন। লাফালাফি করবেন না।’

মঙ্গলবার দুপুরে শিল্পকলা একাডেমির মহড়া কক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ‘আধুনিক ক্রিড়াঙ্গনের প্রবর্তক, সাংস্কৃতিক সংগঠক শেখ কামালের ৬৫তম জন্মবার্ষিকী’ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

কামরুল বলেন, ‘বিএনপি আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে। ২০১৩ সালের শেষের দিকে তারা যে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়েছিল তা যদি আবারও করার চেষ্টা করে তাহলে তাদের খবর আছে।’

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘আপনাদের আন্দোলন করার শক্তি নাই। সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে আন্দোলন করেন। এসমস্ত করে কোনো লাভ নেই। শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করুন। যদি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালান তাহলে তার চরম মূল্য দিতে হবে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীও জনগণের জানমাল রক্ষার জন্য উপযুক্ত ভূমিকা নেবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপি নেতারা আন্দোলনের ডাক দিয়ে পার্টি অফিসে বালিশে মাথা রেখে ঘুমায়। পার্টি অফিসের সামনে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায় না।’

কামরুল বলেন, ‘দেশে এখন শান্তি ও স্বস্তি ফিরে এসেছে। এ সরকার আগামী ৫ বছর ক্ষমতায় থাকবে।’ ‘জনগণ বিএনপি নেতাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের সহ সভাপতি মোবারক আলী শিকদারের সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য সাহারা খাতুন, নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক চিত্ত রঞ্জন দাশ, অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক বলরাম পোদ্দার, অভিনেতা ড. এনামুল হক প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই