মেইন ম্যেনু

‘কুলাঙ্গার’ শিক্ষকদের শায়েস্তায় আইন হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী

যেসব শিক্ষক ক্লাসে না পড়িয়ে ছাত্রদের বাসায় ডাকেন ও টাকার বিনিময়ে পড়াতে চান, প্রশ্নফাঁস করে ছাত্রদের মেধা ও সরকারের ভাবমর্যাদা নষ্ট করছে সেসব শিক্ষককে কুলাঙ্গার আখ্যায়িত করে তাদের শাস্তি দিতে আলাদা আইন করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

নীতিবান শিক্ষকরা সরকারের শিক্ষা পরিবারের মাথার তাজ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এমন শিক্ষকদের সম্মান ও মর্যাদা রক্ষায় দুর্নীতিগ্রস্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে সরকার বদ্ধপরিকর।

শনিবার জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত ‘কানেক্টিং ক্লাসরুম’ শীর্ষক এক ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে তিনি এ কথা বলেন। রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে ব্রিটিশ কাউন্সিল এ প্রোগ্রামের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক শামসুল হুদা। সভাপতিত্ব করেন ব্রিটিশ কাউন্সিলের পরিচালক বারবারা উইকহ্যাম।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, গতানুগতিক শিক্ষা দিয়ে শিক্ষাব্যবস্থার উন্নতি সম্ভব নয়। ফলে শিক্ষাব্যবস্থাকে যুগোপযোগীকরণে নানা পদক্ষেপ হাতে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। শিক্ষার মান বাড়াতে শিক্ষকদের বেতন দ্বিগুণ করা হয়েছে, শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মকর্তাদের নতুন নতুন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি, পাঠদানে নতুনত্ব আনা হয়েছে।

ব্রিটিশ কাউন্সিল ও ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ডিএফআইডি)-যৌথভাবে ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশে ‘কানেক্টিং ক্লাসরুমস’ নামক গ্লোবাল প্রোগ্রাম আয়োজন করছে।

এ প্রোগ্রামের মাধ্যমে দেশের মাধ্যমিক পর্যায়ের সহকারী শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় যাতে তারা পাঠদান কার্যক্রমে প্রয়োজনীয় মৌলিক দক্ষতাগুলো সমন্বয় করতে পারেন। প্রোগ্রামটির সাফল্যের ধারাবাহিকতায়, সম্প্রতি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে, যাতে প্রোগ্রামটি দেশব্যাপী আরও কার্যকর উপায়ে বাস্তবায়ন করা যায়।

ব্রিটিশ কাউন্সিলের ডিরেক্টর বারবারা উইকহ্যাম বলেন, শিক্ষার্থীদের ২১ শতকের জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করানো আমাদের লক্ষ্য আর তা অর্জনে আমরা শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জনে সহায়তা করে যাচ্ছি।

অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. এস এম ওয়াহিদুজ্জামান, বিভিন্ন জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই