মেইন ম্যেনু

কী কারণে এই মডেল বাদ পড়লেন সুন্দরী প্রতিযোগিতা থেকে?

তার স্বপ্ন ছিল মডেল হওয়ার। সেই দিকেই চলছিল তার প্রস্তুতি। মিস অ্যাভোকাডো প্রতিযোগিতায় নাম লিখিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ‘তীরে এলে তরী ডুবলো’ এই মডেলের। কারণ সেই মডেলটি কোনও তরুণী নন। তিনি একজন যুবক। এই কারণেই বিউটি কনটেস্টে প্রথম পুরষ্কার পেয়েও পেলেন না বছর কুঁড়ির এই মডেল৷ তাঁর নাম অ্যান্টনি নাগোরনি৷ তিনি তাঁর বান্ধবীর থেকে মেক আপ এবং বিকিনি নিয়ে এই ফটোশ্যুট করেন।

লম্বা, ছিপছিপে শরীরে, চুলের বহরে বিকিনি শ্যুটে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন প্রতিযোগিতার বিচারকদেরকেও৷ রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতায় জন্য কোনওরকম কোনও বিশেষ নিয়ম ছিলনা৷ এমনকি ছেলে বা মেয়ে কারা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন সেই নিয়েও কোনও নিয়ম ছিলনা৷ অনলাইনে ছবি পাঠানোর কথা ছিল৷ সেই মতনই এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন বছর কুঁড়ির এই মডেল।

অ্যান্টনি বলেন, তাঁর বান্ধবীই তাঁকে সাহায্য করেছিল এই এই ফটোশ্যুটের জন্য৷ যদিও এই বান্ধবীর পরিচয় এখনও অবধি পাওয়া যায় নি। তাঁর এই বান্ধবীই পোশাক-পরিচ্ছদ বাছাই করে দিতে সাহায্য করে। অ্যান্টনি ছিলেন সাখালিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। একটি বিকিনি সংস্থা থেকে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সংস্থার ম্যানেজার বলেন, অ্যান্টনি অনেকাংশেই মহিলাদের মতনই দেখতে। তাই তিনি এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্যও আগ্রহ ছিলেন। তাই এই অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্যও তিনি আগ্রহ ছিলেন। সেই মতনই ছবিও আপলোড করেছিলেন এই ছবিগুলি তিনি। তবে এই ঘটনায় তিনি একেবারেই ভেঙে পড়েননি। এই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই বিভিন্ন জন বিভিন্ন মন্তব্য করেন। আলেক্ষ বলেন, অ্যান্টনি খুব সহজেই ওই ব্যক্তিকে লিঙ্গ বিভেদের অভিযোগে অভিযুক্ত করতে পারবেন। কারণ এই অনুষ্ঠানের জন্য এক বারও কোথাও বলা হয়নি যে ছেলেরা এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারবেন না। তাই কেন এই অবিচার হল অ্যান্টনির সঙ্গে সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। সূত্র: কলকাতা টুয়েন্টিফোর।






মন্তব্য চালু নেই