মেইন ম্যেনু

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) সংবাদ

জুলফিকার আলী, কলারোয়া (সাতক্ষীরা):

কলারোয়ার কেরালকাতা ও সোনাবাড়িয়ায় গ্রামীণ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

কলারোয়ার কেরালকাতা ও সোনাবাড়িয়ায় গ্রামীন পর্যায়ের বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল থেকে কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদ আয়োজিত সিংগা হাইস্কুল মাঠে গ্রামীণ পর্যায়ের এ ক্রীড়ার প্রতিযোগিতার বিভিন্ন খেলা অনুষ্ঠিত হয়। পরে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সম মোরশেদ আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন সিংগা হাইস্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ স্বপন। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষক হরিসাধন ঘোষ, হাইস্কুলের শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ, ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম, শিক্ষক বাবলুর রহমান, মুছা করিম, মোশাররফ হোসেন প্রমুখ। সেখানে বৌচি, মোরগ লড়াই, তৈলাক্ত বাশে ওঠা, হাডুডুসহ ৫টি আইটেমের গ্রামীন পর্যায়ের এ খেলা গুলো অনুষ্ঠিত হয়। খেলা গুলো পরিচালনা করেন সিংগা হাইস্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক শফিকুল ইসলাম। এদিকে, সোনাবাড়িয়ায় অনুষ্ঠিত অনুরূপ প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন খেলা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এসএম শহীদুল ইসলাম।

এসএসসিতে ১৩৬ ও দাখিলে ২০জন জিপিএ-৫ পেয়েছে, এবারো শীর্ষে কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল

কলারোয়া জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুল এবারো জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে উপজেলার শীর্ষ অবস্থান অক্ষুন্ন রেখেছে। শনিবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রকাশিত ফলাফলে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে এসএসসিতে ১৩৬ জন ও দাখিলে ২০ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ (‘এ’ প্লাস) পেয়েছে। কলারোয়ায় এসএসসির ৪ কেন্দ্রের মধ্যে কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল কেন্দ্রে ৫৪ জন, গার্লস পাইলট হাইস্কুল কেন্দ্রে ৪৪ জন, সোনাবাড়িয়া হাইস্কুল কেন্দ্রে ৩১ জন ও খোরদো হাইস্কুল কেন্দ্রে ৭ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে। জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩০জন শিক্ষার্থী ‘এ’ প্লাস পেয়ে শীর্ষস্থান অক্ষুন্ন রেখেছে কলারোয়া জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুল। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে যথাক্রমে ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুল (২০) ও কলারোয়া গার্লস পাইলট হাইস্কুল (১৭)। কলারোয়া পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব জানান, এ কেন্দ্রে অংশ নেয়া জিপিএ-৫ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে- ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুল (২০), কলারোয়া গার্লস হাইস্কুল (১৭), কাজীরহাট বালিকা (৪), কাজীরহাট (২), ধানদিয়া (২), হেলাতলা আইডিয়াল (২), কলারোয়া মডেল (২), সোনার বাংলা (৪) ও বল্লি আইডিয়াল বালিকা (২)। কলারোয়া গার্লস হাইস্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান জানান, এ কেন্দ্রে অংশ নেয়া জিপিএ-৫ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল (৩০), বামনখালি (৬), কয়লা (৩), হঠাৎগঞ্জ (৩), কেকেইপি (১) ও হঠাৎগঞ্জ বালিকা (১)। সোনাবাড়িয়া হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আখতার আসাদুজ্জামান চান্দু জানান, এ কেন্দ্রের জিপিএ-৫ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- সোনাবাড়িয়া (১১), ভাদিয়ালি (১০), চন্দনপুর (৪), সিংগা (২), চান্দুড়িয়া (২), শ্রীরামপুর বিবিআরএনএস (১) ও হিজলদি হাইস্কুল (১)। খোরদো হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, এ কেন্দ্রের জিপিএ-৫ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- খোরদো মাধ্যমিক (২), খোরদো সালেহা হক বালিকা (২). পানিকাউরিয়া (২) ও ছলিমপুর এ.কে খান (১)। এদিকে, কলারোয়া কেন্দ্রের দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৩২ টি মাদ্রাসার ৬৩৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০ জন। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলো হলো- কলারোয়া আলিয়া (৫), কাকডাঙ্গা ফাজিল (৫), ধানঘরা দাখিল (৪), ইসলামপুর দাখিল (২), বসন্তপুর দাখিল (১), বাকসা দাখিল (১), বেড়বাড়ি দাখিল (১) ও সিংহলাল দাখিল (১)।

কলারোয়ায় মদ, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ ১২ লক্ষাধিক টাকার ওষুধ উদ্ধার

কলারোয়া সীমান্তে মদ, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট ও ঔষধসহ ১২ লক্ষাধিক টাকার মালামাল উদ্ধার করেছে বিজিবি। শনিবার দুপুরে ও ভোর রাতে বিভিন্ন সীমান্ত থেকে এগুলো উদ্ধার হয়। বিজিবি সূত্র জানায়, উপজেলার ভাদিয়ালি কাজীরঘাট সীমান্ত এলাকা থেকে কাকডাঙ্গা বিওপির বিজিবি সদস্যরা ভারতীয় যৌন উত্তেজক ৭হাজার পিচ এ্যানাগ্রা ট্যাবলেট, ৫হাজার পিচ নিফিল ট্যাবলেট, ৯’শ পিচ সিনেগ্রা ট্যাবলেট, ১৮হাজার পিচ ইটিজেড ট্যাবলেট, ২০হাজার পিচ সিপ্রোসিন ট্যাবলেট, ১০হাজার পিচ ডেক্সটোজিন, ২০পিচ ডাইকো¬ফেন ইনজেকশান, ৩০হাজার পিচ রিংটেনক্রিয়া ট্যাবলেট ও ১হাজার পিচ ওমিপ্রাজল ট্যাবলেট এবং মাদরা বিওপির বিজিবি সদস্যরা সোনাবাড়িয়া থেকে ১ হাজার পিচ ভারতীয় ডাবল হর্স পাওয়ার ট্যাবলেট ও ২২ বোতল মদ উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত মালামালের আনুমানিক মূল্য ১২লাখ ৩২হাজার টাকা। এ উদ্ধার অভিযানে বিজিবি কোন চোরাকারবারীকে আটক করতে পারেনি।

নাট্য পরিচালক জিএম সৈকতের ‘তারকাদের তারকা হও’ অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে কলারোয়ায় মতবিনিময় সভা

সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান টিভি নাট্য পরিচালক জিএম সৈকতের আয়োজনে লুকায়িত প্রতিভা খুঁজে বের করে জাতীয় পর্যায়ে সুযোগ করে দেয়ার লক্ষ্যে ৩য় বারের মতো শুরু হচ্ছে ‘তারকাদের তারকা হও ২০১৪’ প্রতিযোগিতা। নাচ, গান, অভিনয়, গল্প ও লেখা বিভাগ নিয়ে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানটি আগামী ৬ ও ৭ জুন শুক্র ও শনিবার সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ওই অনুষ্ঠানকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শনিবার সকালে কলারোয়ায় ‘তারকাদের তারকা হও’ উপজেলা কমিটির এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ‘তাকরাদের তারকা হও’ কলারোয়া শাখা অফিসে আয়োজিত ওই সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির আহবায়ক সাইফুজ্জামান। আলোচনা শেষে কলারোয়া উপজেলা কমিটির সভাপতি মোল্যা বুলবুল কবিরের হাতে নাট্য পরিচালক জিএম সৈকতের পক্ষে ‘তারকাদের তারকা হও ২০১৪’ আবেদন ফরম তুলে দেয়া হয়। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক রিয়াজউদ্দীন, সহ.সভাপতি নার্গিস খানম, আজিজুর রহমান, শ্রী গোপাল, মো.হুসাইন, মর্জিনা খাতুন, মোশতাক আহমেদ প্রমুখ। প্রধান অতিথি সাইফুজ্জামান বলেন, প্রকৃত মেধাকে মূল্যায়ন করাই এই অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ্য। অনুষ্ঠান সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হেড অফিস- প্রকৃতি টেলি মিডিয়া (৪র্থ তলা), ২০ ইস্কাটন, ঢাকা, (সেল ফোন- ০১৭৭১-৭৭৫৮৭৫) এ যোগাযোগ করার জন্য আহবান জানিয়েছেন আয়োজক কমিটির সদস্যরা।

কলারোয়ার কয়লায় গ্রামীণ পর্যায়ের বিভিন্ন খেলা অনুষ্ঠিত

গ্রামীণ পর্যায়ে বিভিন্ন খেলা কলারোয়ার কয়লায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১২টি প্রকারের ওই খেলা শনিবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত কয়লা হাইস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। খেলা উদ্বোধন করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রকিব মোল্যা। বৌতি, বিস্কুট দৌড়, মোরগ লড়াই, গোল্যা ছুট, তৈলাক্ত বাশে ওঠা, হাডুডুসহ ১২টি আইটেমের গ্রামীন পর্যায়ের এ খেলা গুলো অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষক ঘোষ সাধন কুমার, আহসান উল্যাহ, ক্রীড়া সংগঠক সিরাজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান মাজেদ, ইউপি সদস্য শহীদুল ইসলাম ও মিলন ঘোষসহ বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ। ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রকিব মোল্যা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন।






মন্তব্য চালু নেই